বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কোভিডে জর্জরিতদেরকে EPFO-র অধীনে একগুচ্ছ সুবিধা দেবে কেন্দ্র, একনজরে তালিকা

কোভিডে জর্জরিতদেরকে EPFO-র অধীনে একগুচ্ছ সুবিধা দেবে কেন্দ্র, একনজরে তালিকা

  • করোনা আবহে জর্জরিত দেশ। এই পরিস্থিতিতে অনের পরিবারই হারিয়েছে তাদের একমাত্র উপার্জনকারী সদস্যকে। সেই সব পরিবারের কথা মাথায় রেখে এবার ইপিএফও (EPFO) এবং ইএসআইসি (ESIC)-এর অধীনে অকগুচ্ছি সুবিধার কথা ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় সরকার।
কর্মচারী রাজ্য বিমা কর্পোরেশনে যদি কোনও ব্যক্তির বিমা করানো থাকে, তাহলে কোভিডে সেই ব্যক্তির মৃত্যু হলে তাঁর উপর নির্ভরশীল পরিবারকে পেনশন দেওয়া হবে। (MINT_PRINT)
1/6কর্মচারী রাজ্য বিমা কর্পোরেশনে যদি কোনও ব্যক্তির বিমা করানো থাকে, তাহলে কোভিডে সেই ব্যক্তির মৃত্যু হলে তাঁর উপর নির্ভরশীল পরিবারকে পেনশন দেওয়া হবে। (MINT_PRINT)
কোনও কর্মচারী যদি মৃত্যুর আগে অবিচ্ছিন্ন ভাবে ১২ মাস কর্মরত থাকেন (তা একাধিক সংস্থায় হতে পারে), সে ক্ষেত্রে তাঁর পরিবার ন্যূনতম আড়াই লক্ষ টাকা পাওয়ার যোগ্য। (MINT_PRINT)
2/6কোনও কর্মচারী যদি মৃত্যুর আগে অবিচ্ছিন্ন ভাবে ১২ মাস কর্মরত থাকেন (তা একাধিক সংস্থায় হতে পারে), সে ক্ষেত্রে তাঁর পরিবার ন্যূনতম আড়াই লক্ষ টাকা পাওয়ার যোগ্য। (MINT_PRINT)
কোনও কর্মীর মৃত্যু হলে, তাঁর স্ত্রী বা স্বামী অথবা বিধবা মা পেনশন পাবেন। এদিকে কর্মী যদি শারীরিক ভাবে অক্ষম হয়ে যান, সেই ক্ষেত্রে তিনি নিজে সেই পেনশন পাবেন। কর্মরত অবস্থায় পাওয়া দৈনিক মজুরির ৯০ শতাংশ পেনশন হিসেবে দেওয়া হবে। বিয়ের আগে পর্যন্ত মৃতের কন্যাও এই সুবিধা পেতে পারেন। ছবি প্রতীকী, সৌজন্যে : pixabay
3/6কোনও কর্মীর মৃত্যু হলে, তাঁর স্ত্রী বা স্বামী অথবা বিধবা মা পেনশন পাবেন। এদিকে কর্মী যদি শারীরিক ভাবে অক্ষম হয়ে যান, সেই ক্ষেত্রে তিনি নিজে সেই পেনশন পাবেন। কর্মরত অবস্থায় পাওয়া দৈনিক মজুরির ৯০ শতাংশ পেনশন হিসেবে দেওয়া হবে। বিয়ের আগে পর্যন্ত মৃতের কন্যাও এই সুবিধা পেতে পারেন। ছবি প্রতীকী, সৌজন্যে : pixabay
অনলাইনে পোর্টালে কর্মীটি নির্ভরশীল যে সব সদস্যদের তথ্য দিয়েছেন, তার উপর ভিত্তি করে এই পেনশন দেওয়া হবে। যদি মৃত ব্যক্তির মনোনীত কেউ (নমিনি) না থাকে তবে আইনি উত্তরাধিকারীরাই এই পরিমাণ দাবি করতে পারেন। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য মিন্ট)
4/6অনলাইনে পোর্টালে কর্মীটি নির্ভরশীল যে সব সদস্যদের তথ্য দিয়েছেন, তার উপর ভিত্তি করে এই পেনশন দেওয়া হবে। যদি মৃত ব্যক্তির মনোনীত কেউ (নমিনি) না থাকে তবে আইনি উত্তরাধিকারীরাই এই পরিমাণ দাবি করতে পারেন। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য মিন্ট)
এদিকে যদি EPFO-র অধীনে সর্বনিম্ন বিমার পরিমাণ বাড়িয়ে আড়াই লক্ষ এবং সর্বোচ্চ ৭ লক্ষ করা হয়েছে। আগে ন্যূনতম বিমা ছিল ২ লক্ষ টাকা এবং সর্বাধিক বিমা ছিল ৬ লক্ষ টাকা। কর্মচারীদের আমানত সংযুক্ত বিমা বা EDLI-র মাধ্যমে এই বিমা দেওয়া হয়ে থাকে। যে সব কর্মী মাসে ১৫ হাজারের কম মাসিক বেতন পান, তারা এই প্রকল্পটির সুবিধা পাবেন। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, এই সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে আগামী তিন বছর। ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে pixabay
5/6এদিকে যদি EPFO-র অধীনে সর্বনিম্ন বিমার পরিমাণ বাড়িয়ে আড়াই লক্ষ এবং সর্বোচ্চ ৭ লক্ষ করা হয়েছে। আগে ন্যূনতম বিমা ছিল ২ লক্ষ টাকা এবং সর্বাধিক বিমা ছিল ৬ লক্ষ টাকা। কর্মচারীদের আমানত সংযুক্ত বিমা বা EDLI-র মাধ্যমে এই বিমা দেওয়া হয়ে থাকে। যে সব কর্মী মাসে ১৫ হাজারের কম মাসিক বেতন পান, তারা এই প্রকল্পটির সুবিধা পাবেন। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, এই সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে আগামী তিন বছর। ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে pixabay
সাধারণত, কাজ চলে গেলে, গৃহ ঋণ শোধ করতে, বাড়ি কিনতে, বাড়ির সংস্কার করতে বা অন্য বিভিন্ন কারণে পিএফের টাকা তুলতে পারেন ইপিএফও অ্যাকাউন্টের গ্রাহকরা। ছবিটি প্রতীকী
6/6সাধারণত, কাজ চলে গেলে, গৃহ ঋণ শোধ করতে, বাড়ি কিনতে, বাড়ির সংস্কার করতে বা অন্য বিভিন্ন কারণে পিএফের টাকা তুলতে পারেন ইপিএফও অ্যাকাউন্টের গ্রাহকরা। ছবিটি প্রতীকী
অন্য গ্যালারিগুলি