বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বাজ পড়ার সময়ে থাকুন সাবধানে: কী করবেন, কী করবেন না? জেনে নিন
ফাইল ছবি : টুইটার (Twitter)
ফাইল ছবি : টুইটার (Twitter)

বাজ পড়ার সময়ে থাকুন সাবধানে: কী করবেন, কী করবেন না? জেনে নিন

  • প্রাকৃতিক বিপর্যয় বিশেষজ্ঞদের মতে, জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতার অভাবই এর প্রধান কারণ।

সোমবার বিকেলে দক্ষিণবঙ্গে প্রবল বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিপাত হয়। বাজ পড়ে তিন জেলায় ২০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এর আগের দিনই পূর্ব বর্ধমানে বজ্রপাতে মৃত্যু হয় ৪ জনের। প্রাকৃতিক বিপর্যয় বিশেষজ্ঞদের মতে, জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতার অভাবই এর প্রধান কারণ।

তাঁদের বক্তব্য, ভারতের তুলনায় অনেক বেশি বজ্রপাত হয় দক্ষিণ আমেরিকার ভেনিজুয়েলা ও ব্রাজিলে। কিন্তু সেই দুই দেশের তুলনায় ভারত, বাংলাদেশের মতো দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশে অনেক বেশি মানুষ বজ্রপাতে প্রাণ হারান।

অর্থাত্ বজ্রপাত আগের তুলনায় বেশি হচ্ছে বলেই মৃত্যু হচ্ছে এমনটা ভাবার কোনও কারণ নেই। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে সচেতনতার অভাব বেশ স্পষ্ট।

অনেকক্ষেত্রেই লক্ষ্য করলে দেখা যায়, বজ্রবিদ্যুত্সহ বৃষ্টির সময়েও মাঠে দিব্যি খেলা হচ্ছে। স্কুল-কলেজ পড়ুয়া খেলোয়াড়দের নিজেদেরও হুঁশ নেই। স্থানীয় কেউও সতর্ক করছেন না। অথবা বজ্রপাতের সময়ে মাঠে কৃষিকাজ করা, ফাঁকা জায়গায় ঘোরা, বড় গাছের নিচে দাঁড়ানো এমনকী ছাদে ঘোরার মতো ঘটনাও দেখা গিয়েছে।

ফলে প্রয়োজন আরও বেশি সতর্কতার। নিজেও জানুন, অপরকেও মনে করিয়ে দিন এই বিষয়টি।

কী করবেনকী করবেন না
বাড়িতে থাকুন। মাঝরাস্তায় থাকলে কোনও দোকানে আশ্রয় নিন।ছাদে উঠবেন না। রাস্তায় থাকলে কোনও ফাঁকা রাস্তা বা বড় গাছের তলায় আশ্রয় নেবেন না।
এই সময়ে নৌকাভ্রমণ, পুকুর-নদীতে সাঁতার, মাছ ধরা থেকে বিরত থাকুন।লোহার সিঁড়ি, রেলিং, পাইপ ধরে দাঁড়াবেন না। লাইটপোস্ট ঘেঁষে দাঁড়াবেন না।
ঝড় আসার আগেই কৃষিক্ষেত, মাঠ থেকে বাড়ি চলে আসুন।বজ্রবিদ্যুত্সহ বৃষ্টির মধ্যে মাঠে খেলা নৈব নৈব চ। বৃষ্টির বিকেলে ফুটবল মজার হতে পারে, কিন্তু খোলা মাঠে বজ্রপাতের সম্ভাবনা প্রবল।
 ফোন ব্যবহার করতে পারেন। অনেকের বজ্রবিদ্যুত্-এর সময়ে স্মার্টফোন ব্যবহার নিয়ে ভয় থাকে। সেটি ভিত্তিহীন। ছাদে লোহার উঁচু পোল, পাইপ ইত্যাদি বসান অনেকে। জামাকাপড়ের দড়ি টাঙাতে অথবা পায়রার বসার মাচা তৈরী করতে। এটি বেশ বিপদজনক।
উঁচু বিল্ডিংয়ে অফিস হলে তাতে বজ্রনিরোধক ব্যবস্থা আছে কিনা তা রক্ষণাবেক্ষণে কর্মীদের থেকে যাচাই করুন। বেশি ফাঁকা স্থানে জমির মাঝে বাড়ি, ক্লাব তৈরী থেকে বিরত থাকুন।

সতর্ক থাকলেই অনেক ক্ষেত্রে প্রাণহানি এড়ানো যেতে পারে।

বন্ধ করুন