বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > পুলিশ দিবসেই সাত পাঁকে বাঁধা পড়লেন রাজ্যের IAS ও IPS‌ অফিসার
পুলিশ দিবসেই সাত পাঁকে বাঁধা পড়লেন রাজ্যের দুই তরুণ IAS-IPS‌ অফিসার: ছবি (‌সৌজন্য ফেসবুক)‌
পুলিশ দিবসেই সাত পাঁকে বাঁধা পড়লেন রাজ্যের দুই তরুণ IAS-IPS‌ অফিসার: ছবি (‌সৌজন্য ফেসবুক)‌

পুলিশ দিবসেই সাত পাঁকে বাঁধা পড়লেন রাজ্যের IAS ও IPS‌ অফিসার

বিয়ের আসর বসেছিল তিরুবনন্তপুরমের আত্তকাল মন্দিরে।

রূপকথার গল্প। সাত পাকে বাঁধা পড়লেন বাংলার দুই তরুণ আইএএস ও আইপিএস অফিসার। পুলিশ দিবসের দিনেই চার হাত হল তাঁদের। বিয়ের আসর বসেছিল তিরুবনন্তপুরমের আত্তকাল মন্দিরে। তাতে কোনও ক্লেশ নেই। কারণ, দু’‌জনই দক্ষিণ ভারতীয় হলেও বাংলার আইএএস অফিসারের অর্ধাঙ্গিনী হলেন পুলিশ সুপার। নতুন জীবন চিরস্মরণীয় করার জন্য এই দিনটিকে বেছে নিলেন রাজ্যের এই দুই তরুণ তুর্কি আধিকারিক।

বুধবার বিয়ের আসরে জাঁকজমকের কোনও খামতি ছিল না। নববধূ হুগলির অ্যাডিশনাল হেডৃকোয়ার্টার পুলিশ সুপার ঐশ্বর্য সাগর। তিনি বিয়ে করলেন পূর্ব বর্ধমান জেলার অ্যাসিস্ট্যান্ট কলেক্টর আইএএস অফিসার বিষ্ণু দাসকে। নববধূ দক্ষিণ ভারতীয় বেশভূষায় সুসজ্জিত হয়ে একে অপরের গলায় মালা বদল করে জীবনের অটুট বন্ধনে আবদ্ধ হলেন।

জানা গিয়েছে, এই বিয়ের আসর বসেছিল তিরুবনন্তপুরমের আত্তকাল মন্দিরে। দক্ষিণ ভারতীয় রীতি মেনেই তাঁদের বিবাহ সম্পন্ন হয়। এর আগে ঐশ্বর্য ও বিষ্ণু ব্যাচমেট ছিলেন। সেখান থেকেই তাঁদের পরিচয়। তারপর বন্ধুত্ব গাঢ় হতেই প্রণয়ের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তাঁরা। কর্মব্যস্ত জীবন চলাকালীনই বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন দু’‌জনে। তারপর আর দেরি করেননি দুই পরিবারের সদস্যরা। এদিন হাসিমুখে ক্যামেরার সামনে ধরা দিলেন এই নব দম্পতি।

বন্ধ করুন