বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মাধ্যমিকে অঙ্কে পেয়েছিলেন ৫৫, আজ তিনিই IAS, নিজেই শেয়ার করলেন রেজাল্ট
আইএএস শাহিদ চৌধুরী, টুইটার

মাধ্যমিকে অঙ্কে পেয়েছিলেন ৫৫, আজ তিনিই IAS, নিজেই শেয়ার করলেন রেজাল্ট

 টুইটে এক নেটিজেন লিখেছেন, এটা প্রমাণ হয়ে গিয়েছে পরীক্ষার নম্বরটাই সব নয়। একমাত্র কঠিন পরিশ্রম আর ডেডিকেশনটা খুব দরকার। অপর একজন লিখেছেন, স্যার আপনার স্কোর কার্ডের দরকার নেই। আপনি আমাদের হৃদয়ে রয়েছেন।

এবার আইএএস শাহিদ চৌধুরীর পরীক্ষার ফলাফল ভাইরাল হয়ে গেল সোশ্য়াল মিডিয়ায়। ১৯৯৭ সালে তিনি জম্মু ও কাশ্মীর স্টেট বোর্ড থেকে প্রথম ডিভিশনে ক্লাস ১০ পাস করেছিলেন। কিন্তু তিনি সেবার অঙ্কে ১০০র মধ্যে ৫৫ পেয়েছিলেন। কিন্তু তাতে অবশ্য তাঁর আইএএস হওয়া আটকায়নি। কঠিন পরিশ্রম আর লক্ষ্য স্থির থাকলে সাফল্য যে আসবেই সেটাই তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন।

তিনি লিখেছেন, ছাত্রছাত্রীদের চাহিদা মেনে আমি ক্লাস টেনের মার্কশিট দেখাচ্ছি। ৫০০র মধ্যে পেয়েছিলাম ৩৩৯। লিখেছেন আইএএস শাহিদ চৌধুরী। ইংরাজি, অঙ্ক, হিন্দি/উর্দু, বিজ্ঞান ও সোশ্য়াল স্টাডিজের নম্বর রয়েছে ওই মার্কশিটে।

তিনি সেবার ইংরাজিতে পেয়েছিলেন ৭০, অঙ্ক ৫৫, হিন্দিতে ৭১, বিজ্ঞানে ৮৮(থিওরি-৭৩ ও প্র্যাক্টিকালে ১৫) ও সোশ্যাল স্টাডিজে ৫৫ নম্বর পেয়েছিলেন। প্রথম ডিভিশন হলেও আহামরি কোনও রেজাল্ট হয়নি তাঁর। এককথায় গড়পরতা সাধারণ রেজাল্ট হয়েছিল। সেই রেজাল্টই টুইট করেছেন তিনি।

এই টুইটে এক নেটিজেন লিখেছেন, এটা প্রমাণ হয়ে গিয়েছে পরীক্ষার নম্বরটাই সব নয়। একমাত্র কঠিন পরিশ্রম আর ডেডিকেশনটা খুব দরকার। অপর একজন লিখেছেন, স্যার আপনার স্কোর কার্ডের দরকার নেই। আপনি আমাদের হৃদয়ে রয়েছেন।অপর একজন লিখেছেন অঙ্ক এমনই একটা বিষয় যেটা আপনাকে অনেক উচ্চতায় পৌঁছে দিতে পারে। আবার সেটাই আপনাকে একেবারে নীচে নামিয়ে দিতে পারে। অপর একজন লিখেছেন, গড়পরতা রেজাল্ট। কিন্তু আপনি প্রমাণ করে দিয়েছেন একজনের মার্কশিট ভবিষ্যৎকে নিশ্চিত করে না।

বন্ধ করুন