বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিধায়করা রিভলভার নিয়ে ঢুকলেও কি স্বাধীনতার মধ্যে পড়ে? উষ্মাপ্রকাশ SC-র
সুপ্রিম কোর্ট। (ফাইল ছবি, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
সুপ্রিম কোর্ট। (ফাইল ছবি, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

বিধায়করা রিভলভার নিয়ে ঢুকলেও কি স্বাধীনতার মধ্যে পড়ে? উষ্মাপ্রকাশ SC-র

গত ১২ মার্চ কেরালা হাই কোর্টের তরফে অভিযুক্ত বিধায়কদের অপরাধমূলক আইন প্রয়োগের বিরুদ্ধে মত পোষণ করা হয়।

কেরালায় বিধানসভায় বিধায়কদের আচরণ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করল সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি এম আর শাহের বেঞ্চ বিধানসভায় বিধায়কদের বেঞ্চ ভাঙচুর নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করে জানিয়েছে, যদি কোনও বিধায়ক রিভলভার নিয়ে ভিতরে ঢোকেন, তাহলেও কি বলব এটাও বিধায়কদের স্বাধীনতার মধ্যে পড়ে?

২০১৫ সালের ১৩ মার্চ কেরালায় বিধায়করা বিধানসভার মধ্যে মাইক্রোফোন ছোড়াছুড়ি করেছিলেন। আসবাবপত্র ভাঙচুর করেছিলেন। সভায় বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। এদিন বিধায়কদের আচরণে উষ্মা প্রকাশ করে হাইকোর্ট জানিয়েছে, ‘‌এটা সরকারি সম্পত্তি। এটা কোনও ব্যক্তিগত সম্পত্তি নয়। এই সরকারি সম্পত্তি রক্ষা করার দায়িত্ব সরকারের। জনস্বার্থের কথা মাথায় রেখে বিষয়টি বিবেচনা করা উচিত।’‌ একইসঙ্গে আদালত জানিয়ে দিয়েছে, বিধানসভায় বিধায়কদের বাক স্বাধীনতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা যায় না। তাই বলে কি একজন বিধায়ক যদি রিভলভার নিয়ে অধিবেশন কক্ষে ঢুকে যায়, তখনও কি বলব এটাও বিধায়কদের স্বাধীনতার মধ্যেই পড়ে?

এর আগে গত ১২ মার্চ কেরালা হাইকোর্টের তরফে অভিযুক্ত বিধায়কদের অপরাধমূলক আইন প্রয়োগের বিরুদ্ধে মত পোষণ করা হয়। কেরালা সরকার ও অভিযুক্ত বিধায়করা আদালতে মামলা দায়ের করেন। হাইকোর্ট দুই পক্ষের আইনজীবীর বক্তব্য শুনলেও এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত রায়দান করেনি। এরইমধ্যে এই মামলা সুপ্রিম কোর্টে যায়। এদিন সুপ্রিম কোর্টও জানিয়ে দিয়েছে, বিধানসভায় সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুরের ঘটনায় অভিযুক্ত একদল বিধায়কদের বিরুদ্ধে বিচারবিভাগীয় প্রক্রিয়াকে বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়টি আদালতের কাছে কোনও অবস্থাতেই বোধগম্য হচ্ছে না।

বন্ধ করুন