বাড়ি > ঘরে বাইরে > শেষ তিন বছরে, রেলওয়ে চত্বরে মৃত্যু ৩০ হাজার জনের
হাওড়া স্টেশন
হাওড়া স্টেশন

শেষ তিন বছরে, রেলওয়ে চত্বরে মৃত্যু ৩০ হাজার জনের

  • রেল দুর্ঘটনায় মারা যাননি, এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রশ্ন করেছিলেন নীতি আয়োগের সিইও। তাতেই ঝুলি থেকে বেড়াল বেরোলো। 

রেলওয়ে চত্বরে শেষ তিন বছরে বিভিন্ন অনভিপ্রেত ঘটনায় তিরিশ হাজার জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় রেল। রেলের দাবি যে গত বছরে দুর্ঘটনায় কোনও ব্যক্তির মৃত্যু হয়নি, সেই নিয়েই প্রশ্ন করেছে নীতি আয়োগ। তার উত্তরেই এই কথা জানায় রেল। 

এটা বলে রাখা ভালো, যে রেল দুর্ঘটনা বলতে শুধু সেগুলিকে ধরা হয় যেখানে রেলের কোনও ভুল আছে, যেমন ট্রেন লাইনচ্যূত হওয়া। যারা আইন ভেঙে রেল চত্বরে ঢুকে মারা গিয়েছেন, সেগুলি ধরা হয় না এই হিসাবে। 

রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান ভিকে যাদব বলেন যে গত বছর কোনও দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়নি। এবছরও সেই রেকর্ড অটুট। তবে ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু  বা রেল ট্র্যাকে মানুষ এসে গিয়ে কাটা পড়ার ঘটনার আলাদা করে হিসাব রাখা হয়। গত তিন বছরে এরকম ভাবে ২৯-৩০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে জানান যাদব। তিনি বলেন নীতি আয়োগকে এই তথ্য দেওয়া হবে। 

রেল মন্ত্রক জানিয়েছে তাদের দোষে কোনও মৃত্যু হয়নি গত বছর। কিন্তু যাত্রীদের ভুলে বা অসতর্কতার জন্য অনেকে কাটা পড়েন, ট্রেন থেকে পড়ে মারা যান। এতে তাদের কিছু করার নেই বলে মন্ত্রকের দাবি। যদিও তারা সচেতনতা বৃদ্ধির চেষ্টা করছেন বলে জানিয়েছে রেলমন্ত্রক। 

নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত রেলকে চিঠি লিখে এই নিয়ে প্রশ্ন করেছিলেন। তিনি প্রশ্ন করেছিলেন শুধু মুম্বইয়ে লোকাল ট্রেনে দুর্ঘটনায় প্রতি বছর হাজার হাজার মানুষ মারা যান। সেই পরিপ্রেক্ষিতে এবার কৈফিয়েত দিল রেল, তবে একসঙ্গে দায়ও ঝেড়ে নিল। অপ্রতুল ট্রেনের কারণেই যে যাত্রীরা ঝুলতে ঝুলতে যান, সেটাকে নেহাতই অসতর্ক ভাবে যাত্রা করার ফলে মৃত্যুর তালিকায় ফেলে দিয়েছে ভারতীয় রেলওয়ে। 

বন্ধ করুন