বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > AdsWizz-র সঙ্গে ভারতের প্রথম প্রোগ্রামেটিক পডকাস্ট মার্কেটপ্লেস চালু HT Media-র
ভিডিয়ো নির্মাতাদের ক্ষেত্রে ইউটিউবের যে ভূমিকা, সেই একই ভূমিকা পডকাস্টারদের ক্ষেত্রে পালন করতে চাইছে হিন্দুস্তান টাইমস মিডিয়া।
ভিডিয়ো নির্মাতাদের ক্ষেত্রে ইউটিউবের যে ভূমিকা, সেই একই ভূমিকা পডকাস্টারদের ক্ষেত্রে পালন করতে চাইছে হিন্দুস্তান টাইমস মিডিয়া।

AdsWizz-র সঙ্গে ভারতের প্রথম প্রোগ্রামেটিক পডকাস্ট মার্কেটপ্লেস চালু HT Media-র

  • ভিডিয়ো নির্মাতাদের ক্ষেত্রে ইউটিউবের যে ভূমিকা, সেই একই ভূমিকা পডকাস্টারদের ক্ষেত্রে পালন করতে চাইছে হিন্দুস্তান টাইমস মিডিয়া।

AdsWizz-এর সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভারতের সর্বপ্রথম প্রোগ্রামেটিক পডকাস্ট মার্কেটপ্লেস আনল হিন্দুস্তান টাইমস মিডিয়া লিমিটেড। ‘FabX’ নামে সেই প্রোগ্রামেটিক পডকাস্ট মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে ভারতের লাখ-লাখ শ্রোতার কাছে পৌঁছাতে পারবে বিভিন্ন ব্র্যান্ড। যা হিন্দুস্তান টাইমস মিডিয়ার বিশাল সাম্রাজ্যে নবতম সংযোজন। 

আপাতত ভারতে পডকাস্টের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দেওয়ার বিষয়টি একেবারে প্রাথমিক স্তরে আছে। সেই পরিস্থিতিতে প্রোগ্রামেটিক পডকাস্ট মার্কেটপ্লেস নয়া দিগন্তের উন্মোচন করবে। তাতে লাভবান হবে সবপক্ষই। বিশেষজ্ঞদের মতে, আপাতত বাজারে সাবস্ক্রিপশন-নির্ভর মডেল এবং ব্যক্তিগত কনটেন্ট বিক্রির ধারা প্রচলিত হলেও প্রোগ্রামেটিক পডকাস্ট মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে অর্থলাভের পথ প্রশস্ত হবে। 

বিষষয়টি নিয়ে AdsWizz-এর নিউ মার্কেটের ভাইস-প্রেসি়ডেন্ট প্যাট্রিক রজার বলেছেন, ‘এই (পডকাস্ট) বাজারে যে সুযোগ বেড়েছে, তা হিন্দুস্তান টাইমসের সঙ্গে আমাদের হাত মেলানোর মাধ্যমে ফুটে উঠেছে। প্রোগ্রামেটিক বিজ্ঞাপন এবং পডকাস্টের যে ক্ষমতা আছে, তার একত্রীকরণ করেছে আমাদের প্রযুক্তি।’ তিনি জানিয়েছেন, প্রোগ্রামেটিক পডকাস্ট মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে নিজেদের অডিয়েন্স বা নির্দিষ্ট জনগণের কাছে সহজেই পৌঁছাতে পারবে বিজ্ঞাপনদাতারা। এআই (আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স) ট্রান্সক্রিপশন টেকনোনজির মাধ্যমে কোনও ব্র্যান্ডের সুরক্ষা নিশ্চিত হবে। যা শুধুমাত্র নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর কোনও পডকাস্ট শো বা এপিসোডে বিজ্ঞাপন প্রদান করবে। শুধু তাই নয়, প্যাট্রিকের মতে, অসংখ্য ভাষায় কনটেন্ট পাওয়া যাওয়ায় পডকাস্ট ভারতীয়দের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

একই সুরে ফিভার নেটওয়ার্ক এবং নেক্সট রেডিয়ো লিমিটেডের সিইও রমেশ মেনন বলেছেন, ‘বিজ্ঞাপনদাতাদের পডকাস্টের মতো সম্ভাবনাশীল মাধ্যমের যে ক্ষমতা আছে, তা অনুভব করানোর ক্ষেত্রে এটা আমাদের কাছে অত্যন্ত আকর্ষণীয় সময় এবং গর্বের মুহূর্ত।’ তিনি জানিয়েছেন, প্রোগ্রামেটিক পডকাস্টের মাধ্যমে বিজ্ঞাপনদাতারা আরও বেশি কার্যকরী হওয়া এবং বেশি প্রভাব বিস্তারের সুযোগ পাবে। যা সময়ও বাঁচাবে। সেই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে ভিডিয়ো নির্মাতাদের ক্ষেত্রে ইউটিউবের যে ভূমিকা, সেই একই ভূমিকা পডকাস্টারদের ক্ষেত্রে পালন করতে চাইছে হিন্দুস্তান টাইমস মিডিয়া।

বন্ধ করুন