বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Income Tax Return: ২০২০-২১ অর্থবর্ষের জন্যে আয়কর রিটার্ন ফাইল করতে হবে কাদের?
ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য মিন্ট
ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য মিন্ট

Income Tax Return: ২০২০-২১ অর্থবর্ষের জন্যে আয়কর রিটার্ন ফাইল করতে হবে কাদের?

  • অনেকের মধ্যে একটি ভুল ধারণা রয়েছে যে বার্ষিক আয় আড়াই লক্ষের কম হলে রিটার্ন ফাইল করতে হবে না।

আপনার বয়স যদি ১৮ বছরের বেশি হয় এবং বার্ষিক আয় আড়াই লক্ষের বেশি হয় তবে আপনাকে আয়কর রিটার্ন ফাইল করতে হবে। ষাটোর্ধ্ব হলে তিন লক্ষের বেশি আয় হলে আপনাকে আয়কর রিটার্ন ফাইল করতে হবে। তবে ৭৫ বছর বা তার বেশি বয়সি পেনশনভোগীকে এবছর আয়কর রিটার্ন জমা দিতে হবে না। কিন্তু দেশের বাইরে আপনার কোনও সম্পত্তি অথবা বিনিয়োগ রয়েছে, সে ক্ষেত্রে আপনার আয় করযোগ্য না হলেও আপনাকে আয়কর রিটার্ন জমা দিতে হবে।

এদিকে পেনশন এবং ব্যাঙ্কে জমা টাকার সুদের উপরে যারা নির্ভরশীল তাঁদের আর বাৎসরিক আয়কর রিটার্ন জমা দিতে হবে না। সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্ক তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রয়োজনীয় কর কেটে নেবে। আয়কর রিটার্ন জমার ক্ষেত্রে এই ছাড়ের সুযোগ পেতে হলে, সংশ্লিষ্ট ৭৫ বছর বা তার বেশি বয়সি পেনশনভোগীকে তাঁর নির্দিষ্ট ব্যাঙ্কে একটি বিবরণী পেশ করতে হবে। ঘোষণাপত্রটি জমা হওয়ার পরে, নির্দিষ্ট ব্যাঙ্কটি প্রবীণ নাগরিকের আয় গণনা করে নির্দিষ্ট পরিমাণ কর কেটে নেবে। এদিকে ৮০ বছরের বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে ৫ লক্ষের বেশি আয় হলে কর কাটা হবে।

প্রসঙ্গত, অনেকের মধ্যে একটি ভুল ধারণা রয়েছে যে বার্ষিক আয় আড়াই লক্ষের কম হলে রিটার্ন ফাইল করতে হবে না। ঘটনা তা নয়। ভারতের প্রতিটি নাগরিকের আয় সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য আয়কর দফতরের কাছে থাকাটা দরকার। তাই করযোগ্য আয়ের আওতায় না পড়লেও রিটার্ন ফাইল করতে হয়। সেক্ষেত্রে আয়কর হিসেবে আপনার থেকে কোনও টাকা কাটা হবে না।

এদিকে চলতি বছরের বাজেটে আয়কর আইনে দুটি নয়া সেকশন, 206AB ও 206CCA যোগ করার কথা ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। এই নীতি অনুযায়ী যাঁরা আয়কর ফাইল করবেন না, তাঁদের অতিরিক্ত হারে টিডিএস ও টিসিএস কেটে নেওয়া হবে। এদিকে 54, 54F, 54EC ধারায় দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগের ক্ষেত্রে আয়কর ছাড় মেলে। এছাড়া 80C, 80 CCD, 80D, 80G 80TTA, 80 TTB ধারায় দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগের ক্ষেত্রে আয়কর ছাড় মেলে।

বন্ধ করুন