বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কয়লার চাহিদা বাড়ছে মানে অর্থনৈতিক উন্নতি, চিনের মতো পরিস্থিতি নয়, জানাল কেন্দ্র
কয়লার চাহিদা বাড়ছে ক্রমশ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
কয়লার চাহিদা বাড়ছে ক্রমশ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

কয়লার চাহিদা বাড়ছে মানে অর্থনৈতিক উন্নতি, চিনের মতো পরিস্থিতি নয়, জানাল কেন্দ্র

  • মন্ত্রকের দাবি , সৌভাগ্য প্রকল্পে প্রায় ২৮ মিলিয়ন নতুন বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। সেই বাড়িতে টিভি, ফ্যান, কুলার কেনা হয়েছে। এতেও বিদ্যুতের চাহিদা বেড়েছে।

ভারতের শক্তিমন্ত্রক জানিয়ে দিল, ভারতে এই যে শক্তির চাহিদা বাড়ছে এটা একটি ইতিবাচক দিক। বোঝা যাচ্ছে ভারতের অর্থনীতি এগোচ্ছে। মন্ত্রক বিবৃতিতে জানিয়েছে অগস্ট মাস থেকে এই চাহিদা ক্রমশ বাড়ছে। চলতি বছরের অগস্ট মাসে বিদ্যুতের চাহিদা ছিল ১২৪ বিলিয়ন ইউনিট। আর অতিমারির আগে ২০১৯ সালের অগস্ট মাসে এই চাহিদা ছিল ১০৬ বিলিয়ন ইউনিট। ১৮-২০ শতাংশ চাহিদা বেড়ে গিয়েছে। এই চাহিদার মধ্যে ধারাবাহিকতাও রয়েছে। কিন্তু কেন এভাবে বিদ্যুতের চাহিদা বেড়ে গিয়েছে? মন্ত্রকের দাবি , সৌভাগ্য প্রকল্পে প্রায় ২৮ মিলিয়ন নতুন বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। সেই বাড়িতে টিভি, ফ্যান, কুলার কেনা হয়েছে। এতেও বিদ্যুতের চাহিদা বেড়েছে। প্রসঙ্গত কয়লার যোগান কম নিয়ে নানা মহল থেকে অভিযোগ উঠছিল। তারই ব্যাখ্যা দিল শক্তিমন্ত্রক। 

 

সরকারি সূত্রে খবর, অগস্ট ও সেপ্টেম্বরে কয়লাখনি এলাকায় প্রচুর বৃষ্টি হয়েছে। এর জেরে কয়লার যোগানের ক্ষেত্রে কিছু সমস্যা হয়েছে। তবে এখনও পাওয়ার প্ল্য়ান্টে চারদিন চালানোর মতো কয়লা মজুত রয়েছে। তাছাড়া প্রতিদিনই নতুন করে কয়লা বোঝাই গাড়ি আসে। আগামী দু তিন দিনের মধ্যে এই স্টক আরও বেড়ে যাবে। দাবি এক আধিকারিকের। এদিকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরকে সিং বলেন, চিনের মতো আমাদের অবস্থা নয়। ভারতে কয়লার কোনও সংকট নেই। কয়লার চাহিদা বেড়েছে। আমরা তা পূরণ করছি। চাহিদা আরও বাড়লে সেটা পূরণ করার মতো পরিস্থিতিও আমাদের রয়েছে। চিনের মতো অবস্থা আমাদের নয়। বিদ্যুতের চাহিদা বৃদ্ধি একটি শুভ দিক। আমরা ঘুরে দাঁড়ানোর রাস্তায় রয়েছি। সৌভাগ্য প্রকল্পে প্রচুর সংযোগও, বিদ্যুতের চাহিদা বৃদ্ধির বড় কারন। জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। 

বন্ধ করুন