বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকার জেরে স্নায়ুর বিরল ব্যাধির ঝুঁকি বাড়ছে, জানাল আমেরিকা
জনসন অ্যান্ড জনসন (সৌজন্যে রয়টার্স)
জনসন অ্যান্ড জনসন (সৌজন্যে রয়টার্স)

জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকার জেরে স্নায়ুর বিরল ব্যাধির ঝুঁকি বাড়ছে, জানাল আমেরিকা

  • মার্কিন এফডিএ সম্প্রতি সতর্ক করেছে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নিয়ে।

অতিমারী আবহে করোনা টিকার ভরসাতেই ফের প্রাণ খুলে নিঃশ্বাস নেওয়ার কথা ভাবছে। তবে এই করোনা টিকা নিয়েও অনেকের মনে রয়েছে সংশয়। এর আগে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার জেরে রক্তে জমাট বাঁধার প্রবণতা তৈরি হয়ে বলে জানা যায়। তারপর অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা প্রয়োগ বন্ধ হয়েছিল বহু দেশে। এবার আরও একটি টিকায় মারাত্মক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার দেখা মিলল। মার্কিন এফডিএ সম্প্রতি সতর্ক করেছে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নিয়ে। এই করোনা টিকার থেকে স্নায়ুর বিরল ব্যাধি হতে পারে হলে জানা এফডিএ।

সোমবার এফডিএ-র তরফে একটি বিবৃতিতে জানানো হয় যে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নিলে তা থেকে এক ধনের বিরল স্নায়বিক জটিলতা দেখা দিতে পারে টিকাপ্রাপ্ত ব্যক্তির শরীরে। এই বিরল ব্যাধি গুলেন সিন্ড্রোম বলে পরিচিত। উল্লেখ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা প্রয়োগ এমনিতেই বন্ধ রয়েছে।

জানা গিয়েছে আমেরিকায় এখনও পর্যন্ত যাঁরা জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি এক ডোজের করোনা টিকা নিয়েছেন তাদের মধ্যে অন্তত ১০০ জন গুলেন সিনড্রোম নামক এই জটিল স্নায়ুর রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এই রোগ বেশ গুরুতর। আক্রান্তদের মধ্যে ৯৫ শতাংশকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে।

র আগে জুন মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এফডিএ-র তরফে জনসন অ্যান্ড জনসনকে কয়েক কোটি টিকার ডোজ ফেলে দিতে বলে। নিউইয়র্ক টাইমস অনুযায়ী জনসন অ্যান্ড জনসনকে ৬ কোটি টিকা ফেলে দিতে বলা হয়েছিল এফডিএ-র তরফে। জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি করোনার টিকার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। পরে অবশ্য সেই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে আমেরিকা। তবে বর্তমানে ফের সেখানে এই টিকা প্রয়োগ বন্ধ রাখা হয়েছে।

বন্ধ করুন