বাড়ি > ঘরে বাইরে > চিনের আগের অবস্থানের বিরোধী- গালওয়ান উপত্যকা নিয়ে বেজিংয়ের দাবি খণ্ডন করল ভারত
চিনা দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ
চিনা দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ

চিনের আগের অবস্থানের বিরোধী- গালওয়ান উপত্যকা নিয়ে বেজিংয়ের দাবি খণ্ডন করল ভারত

ভারতীয় সেনা দীর্ঘদিন ধরে গালওয়ানে টহলদারি করছে, এদিন সাফ জানাল বিদেশমন্ত্রক। একই সঙ্গে বলা হল যে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার অন্যত্রও অনুপ্রবেশ করার চেষ্টা করেছে চিনের সেনা। 

পুরো গালওয়ান উপত্যকাই আমাদের। বহু বছর ধরে প্যাট্রলিং করা হচ্ছে। চিনের এ হেন দাবি ফের উড়িয়ে দিল ভারত। একই সঙ্গে বলা হল যে গত সোমবার হওয়া সংঘর্ষের জন্য সম্পূর্ণভাবে দায়ী চিন। 

শুক্রবার গভীর রাতে চিনের তরফ থেকে একটি বিবৃতিতি বলা হয় পুুরো গালওয়ান উপত্যকা তাদের। একই সঙ্গে ধাপে ধাপে বলা হয় কী ভাবে সেদিন সংঘর্ষ শুরু হয়। ভারতের ওপর পুরো দায় চাপানোর চেষ্টা করলেও তা সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে নয়াদিল্লি। 

বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেন যে গালওয়ানের অবস্থান ঐতিহাসিক ভাবে স্পষ্ট। এখন অতিরঞ্জিত ও অবাস্তব দাবি করলে চলবে না। সেটি চিনের আগের অবস্থানেরও পরিপন্থী বলে জানান তিনি। 

১৫ জুনের সংঘর্ষ ভারতীয় সীমান্তে চিনের পোস্ট বানানো নিয়ে লাগে বলে জানান শ্রীবাস্তব। তিনি বলেন তার আগে ৬ জুন ঠিক হয়েছিল দুই পক্ষই ধাপে ধাপে সেনা কমাবে ও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখাকে মানবে। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি ও ভারতীয় দিকে পোস্ট বানাতে গেছিল চিন, যার ফলে সংঘর্ষ হয় ও প্রাণহানি ঘটে।

ভারত যে এলএসি মেনে চলে, সেটি এদিন ফের স্পষ্ট করে দেন মুখপাত্র। একই সঙ্গে তিনি বলেন অনেক দিন ধরেই গালওয়ানে প্যাট্রলিং করছে ভারতীয় সেনা ও যাবতীয় পরিকাঠামো উন্নয়ন হয়েছে ভারতীয় দিকে। 

শ্রীবাস্তব বলেন যে মে মাসের শুরুতে ভারতের টহলদারিতে বাধা দেয় চিন, যেই নিয়ে বিবিদ হয় ও সেই সময় সেটা মিটিয়ে ফেলা হয়। এরপর পশ্চিম সেক্টরের অন্যত্র দিয়েও এলএসি পেরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছে চিন বলে তিনি জানান। তবে ভারতও সমুচিত জবাব দিয়েছে চিনের যাবতীয় প্রচেষ্টার। এর পরেই দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক ও সামরিক স্তরে আলোচনা শুরু হয়। 

 

বন্ধ করুন