বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবিশ কুমার (MINT_PRINT)
বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবিশ কুমার (MINT_PRINT)

উহান থেকে পাকিস্তানি নাগরিকদের উদ্ধার করতে হলে ভেবে দেখবে ভারত

এর মধ্যে মৃত্যুপুরী উহান থেকে বেরনোর জন্য ছটফট করছেন পাক নাগরিকরা। গত প্রায় ১৫ দিন ধরে শহরে অঘোষিত কার্ফু চলছে। স্তব্ধ গোটা হুবেই প্রদেশ।

নভেল করোনাভাইরাস কবলিত চিনের উহান প্রদেশে আটকে পড়া পাকিস্তানি নাগরিকদের পাশে দাঁড়ানোর ইচ্ছাপ্রকাশ করল ভারত। পড়শি দেশের নাগরিকদের প্রতি বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে। তবে পাকিস্তানের তরফে এমন কোনও প্রস্তাব মেলেনি বলেও জানানো হয়েছে নয়া দিল্লির তরফে।

গত মাসের শেষে চিনের উহান প্রদেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়াতেই একে একে বিশ্বের প্রায় সব দেশ সেখান থেকে তাদের নাগরিকদের সরিয়ে নিয়েছে। বিশেষ বিমান পাঠিয়ে নিরাপদে ৬৫৪-র বেশি নাগরিককে দেশে ফিরিয়েছে ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক ও এয়ার ইন্ডিয়া। এমনকী বাংলাদেশও তাদের নাগরিকদের বিমান পাঠিয়ে উহান থেকে উদ্ধার করে এনেছে। কিন্তু এখনো তেমন কোনও পদক্ষেপ করেনি পাক সরকার।

করোনাআক্রান্ত চিনের হুবেই প্রদেশে প্রবাসী পাকিস্তানিদের সেখানেই থাকতে হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে ইমরান খান প্রশাসন। তাদের দাবি, পাকিস্তানে করোনাভাইরাসের চিকিত্সা করার মতো পরিকাঠামো নেই। তাই উহানপ্রবাসীদের কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত থাকলে তাকে দেশে ফেরালে পাকিস্তানেও ছড়াতে পারে করোনাভাইরাস। সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, কেউ যদি চিনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয় তার চিকিত্সার ব্যবস্থা করবে ইমরান সরকার।

এর মধ্যে মৃত্যুপুরী উহান থেকে বেরনোর জন্য ছটফট করছেন পাক নাগরিকরা। গত প্রায় ১৫ দিন ধরে শহরে অঘোষিত কার্ফু চলছে। স্তব্ধ গোটা হুবেই প্রদেশ। এই পরিস্থিতিতে অনেককেই আধপেটা খেয়ে দিন কাটাতে হচ্ছে। দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করার জন্য সোশ্যাল সাইটে আকুতি জানাচ্ছেন অনেকে।

বৃহস্পতিবার এক সাংবাদিক বৈঠকে পাক নাগরিকদের আবেদন নিয়ে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবিশ কুমার বলেন, ‘আমাদের কাছে পাক সরকারের তরফে এখনো তেমন কোনও আবেদন আসেনি। কিন্তু আবেদন এলে বিবেচনা করা যেতেই পারে। কারণ আমাদের কাছে তেমন পরিকাঠামো রয়েছে।’

ভারতীয় নাগরিক ছাড়াও ইতিমধ্যে মালদ্বীপের ৭ জন নাগরিককে উদ্ধার করেছে ভারত। চিনের হুবেই প্রদেশে থাকেন প্রায় ২৮,০০০ পাকিস্তানি নাগরিক। তাদের মধ্যে অন্তত ৫০০ পাকিস্তানি থাকেন উহান শহরে।



বন্ধ করুন