সংযুক্ত আমিরশাহি থেকে আন্তর্জাতিক বিমান ধরার অপেক্ষার মাঝে দুবাই বিমানবন্দরে খেলছে এই শিশু। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)
সংযুক্ত আমিরশাহি থেকে আন্তর্জাতিক বিমান ধরার অপেক্ষার মাঝে দুবাই বিমানবন্দরে খেলছে এই শিশু। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)

পশ্চিম এশিয়া থেকে প্রবাসীদের মুসলিম বিদ্বেষী প্রচারের তীব্র নিন্দায় ভারত

  • মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত মুষ্টিমেয় ভারতীয়র দ্বারা সোশ্যাল মিডিয়ায় বিদ্বেষমূলক পোচার সম্পর্কে আপত্তি জানিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহির রাজ পরিবার-সহ পশ্চিম এশিয়ার একাধিক দেশের সরকার।

মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতি ভারত সরকারের আচরণ নিয়ে পশ্চিম এশীয় দেশগুলির সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরে বেড়ানো সমালোচনামূলক পোস্টের তীব্র নিন্দা করল বিদেশ মন্ত্রক। সেই সঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হল, Covid-19 সংকট পরবর্তী অর্থনৈতিক পুনর্গঠন নিয়ে নয়াদিল্লির সহযোগিতা পেতে আগ্রহী ওই সমস্ত দেশ।

গত কয়েক সপ্তাহ যাবৎ মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত মুষ্টিমেয় ভারতীয়র দ্বারা সোশ্যাল মিডিয়ায় বিদ্বেষমূলক পোস্ট প্রচার সম্পর্কে আপত্তি জানিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহির রাজ পরিবার-সহ পশ্চিম এশিয়ার একাধিক দেশের সরকার। তাঁদের দাবি, ওই সব পোস্ট ভারতীয় মুসলিমদের নিশানা করেই প্রচার করা হয়েছে।

বিষয়টি গুরুত্ব পেতে শুরু করলে এই বিষয়ে পশ্চিম এশীয় দেশগুলির বিদেশমন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনায় উদ্যোগী হন ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর। বিশেষ করে তিনি কথা বলেন গাল্ফ কোঅপারেশন কাউন্সিলভুক্ত (GCC) দেশগুলির সঙ্গে।

বৃহস্পতিবার সেই সূত্রে অনলাইন সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানান, পশ্চিম এশীয় দেশগুলিতে বসবাসকারী ৮০ লাখ ভারতীয়ের উন্নয়ন সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীদের সহ্গে কথা হয়েছে জয়শংকরের।

তাঁর দাবি, সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরে বেড়ানো সাম্প্রদায়িক পোস্টগুলি বিশেষ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতেই প্রচার করা হচ্ছে। তাঁর দাবি, এই ধরনের মন্তব্য করে পশ্চিম এশীয় দেশগুলির সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক প্রভাবিত করা যাবে না।

শুধু তাই নয়, মুখপাত্রের মতে Covid-19 পরবর্তী অর্থনৈতিক পরিস্থিতির পুনর্গঠনে ভারতের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে আগ্রহী ওই সমস্ত দেশগুলি। এই বিষয়ে তারা ভারতের সাহায্য চেয়েছে বলেও তিনি জানান।

করকোনা সংক্রমণের মোকাবিলা করতে ওই দেশগুলি ভারতের কাছে ওষুধ চেয়ে আবেদন করেছে বলে তিনি জানিয়েছেন। তাতে সাড়া দিয়ে ইতিমধ্যে প্রচুর ওষুধ ও চিকিৎসা সামগ্রী পশ্চিম এশিয়ায় পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বিদেশ মন্ত্রক। সেই সঙ্গে চলতি রমজান মাসের কথা মাথায় রেখে প্রচুর পরিমাণে খাদ্যপণ্যও পাঠানো হয়েছে ওই সব দেশে, জানিয়েছেন শ্রীবাস্তব।

সম্প্রতি করোনা সংক্রমণের কারণে বিদেশি কর্মীদের ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওমান-সহ পশ্চিম এশিয়ার একাধিক দেশ। এ দিন সেই বিষয়ে শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, সংকটের সময় এই নীতি বহু প্রচলিত এবং এর সঙ্গে ভারতের কোনও সম্পর্ক নেই।িক দেশ।

বন্ধ করুন