সংক্রমণ এড়াতে জানলা খুলে রাখুন, বন্ধ রাখুন এ সি। পরামর্শ দিলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। ছবি সৌজন্যে এএনআই।
সংক্রমণ এড়াতে জানলা খুলে রাখুন, বন্ধ রাখুন এ সি। পরামর্শ দিলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। ছবি সৌজন্যে এএনআই।

India fights Covid-19: সংক্রমণ এড়াতে এ সি ব্যবহার করবেন না, আবেদন উদ্ধব ঠাকরের

  • ঘরের সব জানলা খুলে রাখুন, টাটকা বাতাস ভিতরে আসতে দিন। সম্ভব হলে এসি ব্যবহার করবেন না।

করোনাভাইরাসের হাত থেকে রেহাই পেতে চাইলে এয়ার কন্ডিশনার ব্যবহার বন্ধ করুন। এই সাবধান বার্তা দিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। তিনি জানিয়েছেন, কেন্দ্রের থেকে পাওয়া নয়া নির্দেশিকায় এই বিষয়ে সবিস্তারে বলা হয়েছে।

টিভি ক্যামেরার সামনে বসে উদ্ধব জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষিত ২১ দিনের লকডাউন নিয়ে আতঙ্কের কোনও কারণ নেই। তিনি জানিয়েছেন, সংকটকালে মহারাষ্ট্রে পণ্য সরবরাহে কোনও ঘাটতি যাতে দেখা না দেয়, সে বিষয়ে তাঁর সরকার সুনিশ্চিত পদক্ষেপ করছে।

রাজ্যবাসীর উদ্দেশে তিনি জানিয়েছেন, ‘বাড়ির ভিতরে থাকুন। খুব দরকার না হলে বাইরে বেরোবেন না। ঘরের সব জানলা খুলে রাখুন, টাটকা বাতাস ভিতরে আসতে দিন। সম্ভব হলে এসি ব্যবহার করবেন না।’

তাঁর ব্যখ্যা, ‘এসি ব্যবহার বন্ধ রাখার বিষয়ে কেন্দ্র থেকে নতুন পরামর্শ এসেছে। তাতে বলা হয়েছে, এই সময় এসি ব্যবহার না করা ভালো।’

মঙ্গলবার রাত ৮টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণে দেশজুড়ে সম্পূর্ণ কার্ফু জাররির ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। ভাষণ সম্প্রচার শেষ হতেই দিল্লিতে মোদীকে ফোন করেন ঠাকরে। জেনে নেন কার্ফু সংক্রান্ত নিয়মনীতি। ততক্ষণে গোটা মহারাষ্ট্র থলে হাতে পৌঁছে গিয়েছে কাঁচাবাজার ও মুদি দোকানে। খদ্দেরের চাহিদা মেটাতে গিয়ে অচিরেই ভাঁড়ার শূন্য দোকানিদের।

ঠাকরে জানিয়েছেন, কার্ফুতে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে সচেষ্ট তাঁর সরকার। এই কারণে আতঙ্কিত হয়ে বাড়িতে পণ্য মজুত করার চেষ্টা অর্থহীন।

মহারাষ্ট্রে গত সোমবার থেকে সম্পূর্ণ লকডাউন চালু হয়েছে। কার্ফুতে সেই পরিস্থিতিই বহাল থাকবে বলে রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করেন উদ্ধব। বন্ধ করা হচ্ছে না মুদি দোকান, বাজার, ওষুধের দোকান, ব্যাঙ্ক-সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বিপণী ও পরিষেবা।

বন্ধ করুন