বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > India Gate: ইন্ডিয়া গেটের কাছে তুমুল ঝামেলা, আহত ৫ নিরাপত্তারক্ষী, কারণটা কী?

India Gate: ইন্ডিয়া গেটের কাছে তুমুল ঝামেলা, আহত ৫ নিরাপত্তারক্ষী, কারণটা কী?

নিউ দিল্লির শিশু উদ্য়ানের কাছে হকারদের সঙ্গে বেসরকারি নিরাপত্তারক্ষীর ঝামেলা। (ANI Photo) (HT_PRINT)

কর্তব্যপথ নামকরণ হয় ২০২২ সালে। নরেন্দ্র মোদী সেন্ট্রাল ভিস্তার এই রাস্তার উদ্বোধনের সময় বলেছিলেন, ‘কিংগসওয়ে আজ থেকে ইতিহাস হয়ে গেল। 'ঔপনিবেশিকতা’ কার্যত এখন নিশ্চিহ্ন। সেই সূত্র ধরেই এই রাস্তার নয়া নামকরণ করা হয়।

দিল্লির কর্তব্যপথের কাছে বেসরকারি নিরাপত্তারক্ষী ও হকারদের মধ্যে তুমুল ঝামেলা। শিশু উদ্যানে হকারদের বসতে না দেওয়াকে কেন্দ্র করে ঝামেলার সূত্রপাত। সূত্রের খবর,ওই এলাকাটি নো ভেন্ডর জোন হিসাবে পরিচিত। এদিকে সেখানেই কয়েকজন হকার খাবার বিক্রি করছিলেন। সেই সময় নিরাপত্তারক্ষীরা তাদের সরে যেতে বলে। তার থেকেই শুরু হয় ঝামেলা। গন্ডগোলের জেরে ৫জন জখম হয়েছেন।

দিল্লির ডেপুটি পুলিশ কমিশনার প্রণব তয়াল জানিয়েছেন, চিলড্রেন পার্কে ঝামেলা হচ্ছে বলে খবর এসেছিল। ইন্ডিয়া গেটের কাছে ওই জায়গায় হকারদের জিনিসপত্র বিক্রিতে নিষেধ করা আছে। সেটা নিয়েই বেসরকারি নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে হকারদের ঝামেলা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, ইন্ডিয়া গেটের ওই জায়গাটি নো ভেন্ডিং জোন। নিউ দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিলের ট্রাক হকারদের জিনিসপত্র তুলে নিয়ে যেতে এসেছিল। তার জেরেই অশান্তি শুরু হয়ে যায়। হকাররা নির্মাণ সামগ্রী, লাঠি ছুঁড়তে শুরু করে। পাঁচজন নিরাপত্তারক্ষী জখম হয়েছেন।দিল্লি পুলিশ এনিয়ে তদন্ত শুরু করেছে।

তবে নিউ দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিল এনিয়ে এখনই কোনও মন্তব্য় করেনি। তবে গোটা এলাকাটি আটটি জোনে ভাগ করা হয়েছে। সেখানে ১৬টি টিমে ৩২জনকে মোতায়েন করা হয়। সেখানে কর্মী আধিকারিকরা নজরদারি করেন। সেখানেই এবার এই পরিস্থিতি।

তবে সিভিল ডিফেন্সের ভলান্টিয়াররাও এলাকায় থাকেন। এদিকে এখানে অনুমতি ছাড়া জিনিসপত্র বিক্রি করলে ৫০-২০০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হয়। তবে কিছু জায়গায় অনুমতি নিয়ে জিনিসপত্র বিক্রি করা যায়। সেখানে অনুমোদিত হকার ও আইসক্রিম বিক্রির ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু এবার সেখানেই নিয়ম ভেঙে খাবার জিনিস বিক্রির অভিযোগ। তার জেরে তুমুল সংঘর্ষ ইন্ডিয়া গেটের কাছে।

এদিকে কর্তব্য়পথ নামকরণের সঙ্গেও জড়িয়ে রয়েছে নানা ইতিহাস। আসলে ১৯১১ সালে পরাধীন ভারতে প্রথম কলকাতা থেকে দিল্লিতে স্থানান্তরিত হয় রাজধানী। তখন রাইসিনা হিলসই ছিল ক্ষমতার অলিন্দে। ব্রিটিশ আমলে প্রতিটি রাস্তা রাজতন্ত্রকে মাথায় রেখে তৈরি হত। মনে করা হয় তৎকালীন ব্রিটিশ রাজ পঞ্চম জর্জের কথা মাথায় রেখেই এই নামকরণ হতে পারে বা ব্রিটিশ রাজতন্ত্রের প্রমাণ হিসাবে এই নামকরণ হতে পারে।

১৯৪৭ সালে ভারত স্বাধীন হয়। আর ১৯৫৫ সালে কিংগসওয়ের নাম হয় রাজপথ, আর কুইনসওয়ের নাম হয় জনপথ।

এরপর ২০২২ সাল। নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে। কর্তব্যপথ নামকরণ হয় ২০২২ সালে। নরেন্দ্র মোদী সেন্ট্রাল ভিস্তার এই রাস্তার উদ্বোধনের সময় বলেছিলেন, ‘কিংগসওয়ে আজ থেকে ইতিহাস হয়ে গেল। 'ঔপনিবেশিকতা’ কার্যত এখন নিশ্চিহ্ন। সেই সূত্র ধরেই এই রাস্তার নয়া নামকরণ করা হয়।

 

বন্ধ করুন