বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বাংলাদেশে দুর্গাপুজোর মণ্ডপে তাণ্ডব: ঢাকার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে ভারত
বাংলাদেশের কুমিল্লাতে একটি মন্দিরে তাণ্ডবের পরের ছবি (Photo by  AFP) (AFP)
বাংলাদেশের কুমিল্লাতে একটি মন্দিরে তাণ্ডবের পরের ছবি (Photo by  AFP) (AFP)

বাংলাদেশে দুর্গাপুজোর মণ্ডপে তাণ্ডব: ঢাকার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে ভারত

  • বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবারই জানিয়ে দিয়েছেন হিন্দু মন্দিরে যারা তাণ্ডব চালিয়েছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে।

বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে দুর্গাপুজোর মণ্ডপে ও মন্দিরে তাণ্ডব চালানোর অভিযোগ উঠেছে দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। এনিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও নানা কথা রটছে। বাংলাদেশ সরকারও অশান্তি এড়াতে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করেছে। ইতিমধ্যেই সূত্রের খবর, চারজনের মৃত্যু হয়েছে ও অনেকে জখম হয়েছেন। তবে প্রতিবেশী দেশের এই পরিস্থিতি নিয়ে কী ভাবছে ভারত?

বিদেশ দফতরের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি রুটিন ব্রিফিংয়ের সময় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বাংলাদেশে ধর্মীয় জমায়েতে কিছু হামলার ঘটনার রিপোর্ট পাওয়া গিয়েছে।ঢাকাতে ভারতের হাই কমিশন ও বাংলাদেশে ভারতের কনস্যুলেট ঢাকা কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয়স্তরে যোগাযোগ রাখছে। বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের তদন্তের পর গোটা বিষয়টি বিস্তারিত জানা যাবে। তিনি জানিয়েছেন বাংলাদেশ সরকারও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়েছিল। তবে আমরা এটি বুঝেছি বাংলাদেশে দুর্গাপুজা আয়োজনে সেখানকার মানুষের ও সরকারের সহযোগিতা রয়েছে। 

এদিকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবারই জানিয়ে দিয়েছেন, হিন্দু মন্দিরে যারা তাণ্ডব চালিয়েছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে। এই ধরনের ঘৃণ্য কাজের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষকেও নজর রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। সূত্রের খবর হাসিনা জানিয়েছেন, অতীতের মতোই আমরা এবারও  যথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছি। ধর্মীয় পরিচয় যাই হোক না কেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে যাতে আগামীতে কেউ এই ধরনের কাজ করতে সাহস না পায়। তবে এই ধরনের ঘটনা দুর্ভাগ্যজনক বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। গোটা ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তও চলছে। ভার্চুয়াল মাধ্যমে হিন্দুদের শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এই মন্তব্য করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে বাধা দেওয়ার জন্য কুমিল্লার ঘটনা ঘটানো হয়েছে। 

 

বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে দুর্গাপুজোর মণ্ডপে ও মন্দিরে তাণ্ডব চালানোর অভিযোগ উঠেছে দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। এনিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও নানা কথা রটছে। বাংলাদেশ সরকারও অশান্তি এড়াত প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করেছে। ইতিমধ্যেই সূত্রের খবর, চারজনের মৃত্যু হয়েছে ও অনেকে জখম হয়েছেন। তবে প্রতিবেশি দেশের এই পরিস্থিতি নিয়ে কী ভাবছে ভারত?

বিদেশ দফতরের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি রুটিন ব্রিফিংয়ের সময় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বাংলাদেশে ধর্মীয় জমায়েতে কিছু হামলার ঘটনার রিপোর্ট পাওয়া গিয়েছে।ঢাকাতে আমাদের হাই কমিশন ও বাংলাদেশে আমাদের কনস্যুলেটে ঢাকা কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয়স্তরে যোগাযোগ রাখছে। বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের তদন্তের পর গোটা বিষয়টি বিস্তারিত জানা যাবে। তিনি জানিয়েছেন বাংলাদেশ সরকারও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়েছিল। তবে আমরা এটি বুঝেছি বাংলাদেশে দুর্গাপুজা আয়োজনে সেখানকার মানুষের ও সরকারের সহযোগিতা রয়েছে। 

এদিকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবারই জানিয়ে দিয়েছেন হিন্দু মন্দিরে যারা তাণ্ডব চালিয়েছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে। এই ধরনের ঘৃণ্য কাজের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষকেও নজর রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। সূত্রের খবর হাসিনা জানিয়েছেন, অতীতের মতোই আমরা এবারও  যথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছি। ধর্মীয় পরিচয় যাই হোক না কেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে যাতে আগামীতে কেউ এই ধরনের কাজ করতে সাহস না পায়। তবে এই ধরনের ঘটনা দুর্ভাগ্যজনক বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। গোটা ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তও চলছে। ভার্চুয়াল মাধ্যমে হিন্দুদের শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এই মন্তব্য করেছেন। তিনি জানিয়েছেন বাংলাদেশের উন্নয়নে বাধা দেওয়ার জন্য কুমিল্লার মতো ঘটনা হয়েছে। 

|#+|

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন