বাড়ি > ঘরে বাইরে > ভারতে ২০৪৮ সালে জনসংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে ১৬০ কোটি, দাবি গবেষণায়
ভারতে ২০৫০ সালের আগেই জনসংখ্যা সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছবে, বলছে রিপোর্ট।
ভারতে ২০৫০ সালের আগেই জনসংখ্যা সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছবে, বলছে রিপোর্ট।

ভারতে ২০৪৮ সালে জনসংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে ১৬০ কোটি, দাবি গবেষণায়

  • ২১০০ সালে বিশ্বের ৫৭ কোটি ৮০ লাখ কর্মক্ষম মানুষের মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক দেখা যাবে ভারতেই।

২০৪৮ সালে ভারতের জনসংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে ১৬০ কোটি। কিন্তু তার পরেই ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে ২১০০ সালে দেশের জনসংখ্যা দাঁড়াবে ১০৯ কোটিতে। এমনই তথ্য জানা গিয়েছে ২০১৭ সালে ১৯৫টি দেশে সমীক্ষার ভিত্তিতে তৈরি ‘গ্লোবাল বার্ডেন অফ ডিজিসেস’ গবেষণা রিপোর্টে। 

‘দ্য ল্যান্সেট জার্নাল’-এ প্রকাশিত ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০৬৪ সালে বিশ্বের জনসংখ্যা পৌঁছবে ৯৭৩ কোটিতে। তার পরে ২১০০ সালে এসে তা দাঁড়াবে ৮৭৯ কোটি। এই হিসেব রাষ্ট্রপুঞ্জের জনসংখ্যা বিভাগ ঘোষিত সংখ্যার তুলনায় প্রায় ২ কোটি কম। 

গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দুই দেশ ভারত ও চিন ২০৫০ সালের আগেই জনসংখ্যার নিরিখে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছবে। বলা হয়েছে, এর পরে ২১০০ সালে চিনের জনসংখ্যা প্রায় ৫১.১% হ্রাস পাবে এবং ভারতে সর্বোচ্চ পর্যায়ের চেয়ে ৬৮.১% কমবে জনসংখ্যা। 

গবেষণায় জানা গিয়েছে, ২১০০ সালে বিশ্বের ৫৭ কোটি ৮০ লাখ কর্মক্ষম মানুষের মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক দেখা যাবে ভারতেই। ২০১৭ সালে ভারতে কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যা ৭৬.২০ কোটির চেয়ে কমবে বলার পাশাপাশি এ-ও জানানো হয়েছে যে, এশিয়ার ক্ষমতাশালী দেশগুলির মধ্যে অন্যতম ভারতে কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যা রক্ষা করার শক্তি রয়েছে, যা শতাব্দীর শেষে তাকে বিশ্বের জিডিপি তালিকায় সপ্তম থেকে তৃতীয় স্থানে তুলে আনতে পারে।

ওই গবেষণাপত্রে আরও বলা হয়েছে, ২১০০ সালে ভারতের মোট অভিবাসন বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম হয়ে উঠবে। সেই সময় আরও ৫০ লাখের বেশি মানুষ ভারতে বসবাস করতে আসবে।

বন্ধ করুন