বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > চিহ্নিত ১৮টি পয়েন্ট, চিনের সঙ্গে সীমান্তের সমস্যা ধাপে ধাপে মেটাতে চাইছে ভারত
পূর্ব লাদাখের ওয়ার মেমোরিয়ালে সেনাপ্রধান এমএম নরবণে (ফাইল ছবি) (ANI Photo) (ANI)
পূর্ব লাদাখের ওয়ার মেমোরিয়ালে সেনাপ্রধান এমএম নরবণে (ফাইল ছবি) (ANI Photo) (ANI)

চিহ্নিত ১৮টি পয়েন্ট, চিনের সঙ্গে সীমান্তের সমস্যা ধাপে ধাপে মেটাতে চাইছে ভারত

  • ২০২০ সালের মে মাসে পিপলস লিবারেশন আর্মি ১৯৯৩-৯৬ সালের যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি সেটাকে একেবারে ছুঁড়ে ফেলে পূর্ব লাদাখে সেনার মোতায়েনের ধরন বদলে ফেলেছিল।

চিনের সঙ্গে সীমান্ত জনিত সমস্যাগুলি ধাপে ধাপে মেটাতে চাইছে ভারত। যে কোনও একটি ইস্য়ু মিটিয়ে ফের অপর ইস্যু মেটাতে  চাইছে ভারত। ভারতীয় সেনা ও চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মির মধ্যে আলোচনা সাপেক্ষে একে একে সীমান্তের সমস্যাগুলি মেটানোর পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। এদিকে সূত্রের খবর, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় এখনও পর্যন্ত মোটামুটি ১৮টি বিতর্কিত পয়েন্টকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এক প্রাক্তন বিদেশ সচিব জানিয়েছেন, উভয়পক্ষই যাতে সহমত হতে পারে সেকারনে এক এক করে সমস্যাগুলি মেটানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে এই ধরনের দ্বিপাক্ষিক আলোচনা আদৌ কতটা ফলপ্রসূ হয় তা অনেকগুলি বিষয়ের উপর নির্ভর করে। ২০২০ সালের মে মাসে পিপলস লিবারেশন আর্মি ১৯৯৩-৯৬ সালের যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি সেটাকে একেবারে ছুঁড়ে ফেলে পূর্ব লাদাখে সেনার মোতায়েনের ধরন বদলে ফেলেছিল। তারই পরিণতিতে ১৫ই জুন গালওয়ানের মতো ঘটনা ঘটে যায়। ২০জন ভারতীয় সেনাকে শহিদ হতে হয় সেই সময়। হাতাহাতিতে প্রাণ হারান কর্ণেল সন্তোষবাবু।

চিনের সঙ্গে সীমান্ত জনিত সমস্যাগুলি ধাপে ধাপে মেটাতে চাইছে ভারত। যে কোনও একটি ইস্য়ু মিটিয়ে ফের অপর ইস্যু মেটাতে  চাইছে ভারত। ভারতীয় সেনা ও চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মির মধ্যে আলোচনা সাপেক্ষে একে একে সীমান্তের সমস্যাগুলি মেটানোর পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। এদিকে সূত্রের খবর, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় এখনও পর্যন্ত মোটামুটি ১৮টি বিতর্কিত পয়েন্টকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এক প্রাক্তন বিদেশ সচিব জানিয়েছেন, উভয়পক্ষই যাতে সহমত হতে পারে সেকারনে এক এক করে সমস্যাগুলি মেটানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে এই ধরনের দ্বিপাক্ষিক আলোচনা আদৌ কতটা ফলপ্রসূ হয় তা অনেকগুলি বিষয়ের উপর নির্ভর করে। ২০২০ সালের মে মাসে পিপলস লিবারেশন আর্মি ১৯৯৩-৯৬ সালের যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি সেটাকে একেবারে ছুঁড়ে ফেলে পূর্ব লাদাখে সেনার মোতায়েনের ধরন বদলে ফেলেছিল। তারই পরিণতিতে ১৫ই জুন গালওয়ানের মতো ঘটনা ঘটে যায়। ২০জন ভারতীয় সেনাকে শহিদ হতে হয় সেই সময়। হাতাহাতিতে প্রাণ হারান কর্ণেল সন্তোষবাবু।

|#+|

এদিকে সীমান্তের এপারে ভারতীয় সেনা ও ওপারে মোতায়েন থাকে পিএলএ। চলতি বছরের জুন মাসে আচমকাই সীমান্তে চিনা ফৌজের আনাগোনা বাড়তে থাকে বলে বিভিন্ন মহল থেকে দাবি করা হয়। ভারতের সেনা প্রধান এমএম নরবণে ইতিমধ্যেই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর ভারতীয় ফৌজ মোতায়েনের বিষয়টি পর্যালোচনা করেছেন। শীতের আগে পূর্ব লাদাখের পরিস্থিতি নিয়েও পর্যালোচনা করেছেন সেনা প্রধান।

 

বন্ধ করুন