বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার (ফাইল ছবি, সৌজন্য মিন্ট)
বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার (ফাইল ছবি, সৌজন্য মিন্ট)

ট্রাম্পের শান্তি পরিকল্পনা নিয়ে ইজরায়েল-প্যালেস্তাইনকে আলোচনার আর্জি দিল্লির

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নয়া শান্তি পরিকল্পনা নিয়ে সতর্ক প্রতিক্রিয়া নয়াদিল্লির।

মধ্যপ্রাচ্যের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নয়া শান্তি পরিকল্পনা নিয়ে সতর্ক প্রতিক্রিয়া দিল নয়াদিল্লি। ইজরায়েল ও প্যালস্তাইন দু’দেশকেই আলোচনার টেবিলে বসার আর্জি জানাল বিদেশমন্ত্রক।

দীর্ঘ জল্পনার পর মঙ্গলবার ইজরায়েল-প্যালেস্তাইন শান্তি পরিকল্পনা প্রকাশ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সেখানে জেরুসালেমকে ইজরায়েল ও একটি সম্ভাব্য প্যালেস্তানি দেশের অবিভক্ত রাজধানীর স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। তবে প্যালেস্তাইনের ক্ষেত্রে কিছু বিধিনিষেধ থাকবে। পাশাপাশি, প্যালেস্তাইনের ভূ-খণ্ডে থাকা ইজরায়েলিদের বসতিকেও স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে।

যদিও ট্রাম্পের পরিকল্পনা উড়িয়ে দিয়েছে প্যালস্তাইন। শান্তি পরিকল্পনাকে 'চক্রান্ত' বলেছেন প্যালেস্তাইনের প্রেসিডেন্ট মেহমুদ আব্বাস। ফলে ট্রাম্পের পরিকল্পনা আদতে কতটা শান্তি ফিরিয়ে আনবে, তা নিয়ে ধন্দে রয়েছে সংশ্লিষ্ট মহল। এই পরিস্থিতিতে ট্রাম্পের শান্তি পরিকল্পনায় নয়াদিল্লির প্রতিক্রিয়া কী হয়, সেদিকেও নজর ছিল কূটনৈতিক মহলের।


শান্তি পরিকল্পনা নিয়ে বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র বলেন, 'আলোচনার মাধ্যমে দু’পক্ষের চূড়ান্ত ইস্যুগুলির সমাধান করা উচিত। তা উভয়ের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। আমেরিকার নয়া প্রস্তাব-সহ দুই পক্ষকে আলোচনার টেবিলে বসার আর্জি জানাচ্ছি আমরা। শান্তিপূর্ণ অবস্থানের জন্য একটি গ্রহণযোগ্য সমাধানসূত্র বের করা হোক।'

কূটনৈতিক মহলের মতে, প্যালেস্তাইনের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক বররার ভালো। প্যালেস্তাইনের প্রতি সমর্থনও জানিয়েছে নয়াদিল্লি। অন্যদিকে, নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর প্রতিরক্ষা, সুরক্ষা-সহ একাধিক ক্ষেত্রে ইজরায়েলের সঙ্গে চুক্তি করেছে ভারত। এই পরিস্থিতিতে মেপে পা ফেলতে চায় নয়াদিল্লি। তাই বরাবরের মতো এবারও আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের উপর জোর দিয়েছে সাউথ ব্লক।

বন্ধ করুন