বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'ভারত মমতা দিদিকে চায়,' প্রচার শুরু করে দিল তৃণমূল, এবার বাঙালি প্রধানমন্ত্রী?

'ভারত মমতা দিদিকে চায়,' প্রচার শুরু করে দিল তৃণমূল, এবার বাঙালি প্রধানমন্ত্রী?

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)

ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা হয়েছে, আমাদের আশা ২০২৪ সালে প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মানুষ চাইছেন যিনি দেশের সার্বিক উন্নয়ন করবেন। ভোটের রাজনীতিতে তিনি যখন চারদশকে পা দেবেন তখনই তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন। এমনটাই আশা তৃণমূলের।

২০২৪য়ে লোকসভা নির্বাচন। তার আগে রাজনৈতিক দলগুলি ঘুঁটি সাজাতে শুরু করেছে। এদিকে বিজেপির বিরুদ্ধে সর্বভারতীয় স্তরে জোট কী হবে তা নিয়ে নানা জল্পনা চলছে। তবে তারই মধ্যে এবার নতুন প্রচার শুরু করে দিল তৃণমূল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসাবে তুলে ধরে প্রচার শুরু করেছে তৃণমূল।

শনিবার এনিয়ে একটি ওয়েবসাইটের সূচনা করেছেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন। সেখানে লেখা হয়েছে, ভারত মমতা দি-কে চায়। এদিকে ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের আগে তৃণমূলের স্লোগান ছিল বাংলা তার নিজের মেয়েকে চায়। আর সেই স্লোগানেই বাজিমাত করেছিল তৃণমূল। এবার লোকসভা ভোটের আগে তৃণমূলের নয়া স্লোগান, ভারত মমতাদি কে চায়। 

কার্যত বলা হয়েছে গোটা দেশ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চাইছে। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে এই প্রচারের মাধ্যমে কার্যত দুটি উদ্দেশ্য সিদ্ধ করতে চায় তৃণমূল। একদিকে বিজেপিকে চাপে রাখা। অন্যদিকে জোট হলে তার নেত্রী যে মমতাকে করা দরকার সেই বার্তাও তুলে ধরা হচ্ছে।

ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা হয়েছে, আমাদের আশা ২০২৪ সালে প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মানুষ চাইছেন যিনি দেশের সার্বিক উন্নয়ন করবেন। ভোটের রাজনীতিতে তিনি যখন চারদশকে পা দেবেন তখনই তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন। এমনটাই আশা তৃণমূলের। 

এদিকে এনিয়ে বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, এবারই প্রথম নয়, ২০১৪, ২০১৯ সালেও তৃণমূল এই ধরনের প্রচার চালিয়েছিল। তৃণমূল চিরদিন নেট প্র্যাকটিশই করে , মাঠে খেলতে নামতে পারে না। 

বন্ধ করুন