বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > করোনা-বোর্ডের বৈঠকের পর মাস্ক পরার আর্জি বাইডেনের,নেতৃত্বে ভারতীয়-মার্কিন মূর্তি
বিবেক মূর্তি (ফাইল ছবি, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
বিবেক মূর্তি (ফাইল ছবি, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

করোনা-বোর্ডের বৈঠকের পর মাস্ক পরার আর্জি বাইডেনের,নেতৃত্বে ভারতীয়-মার্কিন মূর্তি

  • তবে শুধু করোনা মোকাবিলার উপদেষ্টা বোর্ড নয়, বিডেনের প্রশাসনে ভারতীয়-মার্কিনদের সংখ্যা নেহাত কম হবে না বলে মত সংশ্লিষ্ট মহলের।

ভারতীয় বংশোদ্ভূতকে নিজের ডেপুটি হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন। এবার করোনাভাইরাস টাস্ক ফোর্সের প্রধান হিসেবে যে তিনজনকে বেছে নিলেন আমেরিকার নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, তাঁদের মধ্যে আছেন ভারতীয়-মার্কিন চিকিৎসক বিবেক মূর্তি। 

ভোট-পূর্ববর্তী যে প্রতিশ্রুতিগুলি দিয়েছিলেন বাইডেন, তাতে করোনাভাইরাস মোকাবিলার বিষয়টি প্রথম দিকেই ছিল। তারই অঙ্গ হিসেবে সেই উপদেষ্টা বোর্ড গঠন করা হয়েছে। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট এবং ভাইস-প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসকে বিভিন্ন পরামর্শ দেবে সেই বোর্ড। 

ডেভিড কেসলার এবং মার্সেলা নুনেজ-স্মিথের সঙ্গে সেই টাস্ক ফোর্সের দায়িত্বে থাকবেন মূর্তি। যিনি দীর্ঘদিন ধরেই করোনা নিয়ে বাইডেনকে পরামর্শ দিচ্ছেন। প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সার্জেন জেনারেল হিসেবে উঠে এসেছিলেন মূর্তি। ২০১৪ সালের ১৫ ডিসেম্বর থেকে ২০১৭ সালের ২১ এপ্রিল পর্যন্ত আমেরিকার ১৯ তম সার্জেন জেনারেল ছিলেন।

বাইডেন বলেছিলেন, ‘আমাদের প্রশাসন যেসব অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হবে, তার মধ্যে করোনাভাইরাসের মোকাবিলা করার বিষয়টি থাকবে। আমি বিজ্ঞানের সাহায্য নেব এবং বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেব।’ তিনি জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে, টিকার সুরক্ষা নিশ্চিত করতে, বিনামূল্যে এবং দক্ষভাবে করোনার টিকা বণ্টন সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে সেই বোর্ড।

তবে শুধু করোনা মোকাবিলার উপদেষ্টা বোর্ড নয়, বিডেনের প্রশাসনে ভারতীয়-মার্কিনদের সংখ্যা নেহাত কম হবে না বলে মত সংশ্লিষ্ট মহলের। তা নিয়ে একটি সম্ভাব্য তালিকাও তৈরি করা হচ্ছে।

তারইমধ্যে উপদেষ্টা বোর্ডের প্রথম বৈঠকের পর বাইডেন বলেন, '২০ জানুয়ারি পর্যন্ত আমি প্রেসিডেন্ট থাকব না। এটা গুরুত্বপূর্ণ যে আপনি কাকে ভোট দিয়েছেন, ভোটের দিন আমি কোন পক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন। আপনি কোন দলের সমর্থক, আপনার ভাবধারা কী, সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। আপনারা যদি প্রত্যেকে আগামী কয়েক মাসে শুধু মাস্ক পরেন, তাহলে হাজার হাজার মানুষের জীবন বাঁচবে। ডেমোক্র্যাট বা রিপাবলিকান জীবন নয়, আমেরিকার মানুষের জীবন।'

বন্ধ করুন