বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ৪১ বছরে সর্বনিম্ন, করোনার দাপটের মধ্যে গত অর্থবর্ষে ৭.৩% সংকুচিত ভারতীয় অর্থনীতি
৪১ বছরে প্রথম, করোনার দাপটের মধ্যে গত অর্থবর্ষে ৭.৩% সংকুচিত ভারতীয় অর্থনীতি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
৪১ বছরে প্রথম, করোনার দাপটের মধ্যে গত অর্থবর্ষে ৭.৩% সংকুচিত ভারতীয় অর্থনীতি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

৪১ বছরে সর্বনিম্ন, করোনার দাপটের মধ্যে গত অর্থবর্ষে ৭.৩% সংকুচিত ভারতীয় অর্থনীতি

  • তবে করোনাভাইরাসের কারণেই যে শুধুমাত্র ভারতীয় অর্থনীতি ধুঁকছে, তা নয়।

আশঙ্কা যতটা করা হয়েছিল, তার থেকে কিছুটা কম সংকুচিত হল ভারতীয় অর্থনীতি। করোনোভাইরাসের দাপটের মধ্যে গত অর্থবর্ষে (২০২০-২১ অর্থবর্ষ) ভারতীয় অর্থনীতি ৭.৩ শতাংশ সংকুচিত হয়েছে। 

সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত অর্থবর্ষে জানুয়ারি থেকে পর্যন্ত ১.৬ শতাংশ আর্থিক বৃদ্ধির সাক্ষী ছিল ভারত। যা পূর্ববর্তী ত্রৈমাসিকের থেকে ০.৫ শতাংশ বেশি। সেই সময় সদ্য লকডাউন কাটিয়ে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছিল দৈনন্দিন গতিবিধি। অর্থাৎ ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আগে চতুর্থ ত্রৈমাসিকে আর্থিক বৃদ্ধির হার ঊর্ধ্বমুখী হয়েছিল। তারপর অবশ্য করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে অর্থনীতির সেই ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা ধাক্কা খেয়েছে। মুখ্য অর্থনীতি উপদেষ্টা কে ভি সুব্রমনিয়ান বলেন, ‘অর্থনীতির যে গতি এসেছিল, তা দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে ধাক্কা খেয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবর্ষে ভারতীয় অর্থনীতি ১.৬ শতাংশ বেড়েছে। পুরো বছরে (২০২০-২১ অর্থবর্ষ) ভারতীয় অর্থনীতি ৭.৩ শতাংশ সংকুচিত হয়েছে।’

তবে করোনাভাইরাসের কারণেই যে শুধুমাত্র ভারতীয় অর্থনীতি ধুঁকছে, তা নয়। করোনার দাপট শুরু হওয়ার আগেও অর্থনীতি ঢিমেতালে চলছিল। গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতো দেশজুড়ে লকডাউনের ফলে ক্রেতাদের চাহিদা এবং আস্থা ব্যাপকভাবে ধাক্কা খায়। স্বভাবতই ধুঁকতে থাকে অর্থনীতি। তার ফলে গত ৪১ বছরে এই প্রথম পুরো একটা অর্থবর্ষে সার্বিকভাবে সংকুচিত হয়েছে অর্থনীতি। পাশাপাশি যা সর্বনিম্ন। ১৯৭৯-৮০ অর্থবর্ষে ভারতীয় অর্থনীতির সংকোচনের হার ছিল ৫.২ শতাংশ।

এমনিতে জাতীয় পরিসংখ্যান কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত অর্থবর্ষে (২০২০-২১ অর্থবর্ষ) ভারতের অর্থনীতি কমে ১৩৫ লাখ কোটি টাকায় ঠেকেছে। যা ২০১৯-২০২০ অর্থবর্ষে ছিল ১৪৫ লাখ কোটি টাকা। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, সেই ১৪৫ লাখ কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছাতে চলতি অর্থবর্ষে ১০-১১ শতাংশ হারে বাড়তে পারে ভারতীয় অর্থনীতি। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় সেই সম্ভাবনা কার্যত নেই। অর্থনীতির ইতিবাচক প্রবণতাও ধাক্কা খেয়েছে। তাই ভিত্তি কমে গেলেও আর্থিক বৃদ্ধির হার ১০-১১ শতাংশে পৌঁছানো কার্যত অসম্ভব।

বন্ধ করুন