বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আইএনএস রণবীর-এ এসি কম্পার্টমেন্টে বিস্ফোরণ নিয়ে কী জানাল ভারতীয় নৌসেনা?
আইএনএস রণবীর। ছবি সৌজন্য টুইটার।
আইএনএস রণবীর। ছবি সৌজন্য টুইটার।

আইএনএস রণবীর-এ এসি কম্পার্টমেন্টে বিস্ফোরণ নিয়ে কী জানাল ভারতীয় নৌসেনা?

  • মঙ্গলবার এই বিস্ফোরণের সময় এসি কম্পার্টমেন্টের লাগোয়া অংশে ছিলেন ৩ নাবিক। বিস্ফোরণের ফলে তাঁদের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয় নৌসেনার তরফে।

আইএনএস রণবীরের এসি কম্পার্টমেন্টে বিস্ফোরণের ঘটনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হতাহতের সংখ্যা নিশ্চিত করেছে ভারতীয় নৌসেনা। সেনার তরফে জানানো হয়েছে, ৩ জন নাবিকের মৃত্যু হয়েছে ঘটনায়। এছাড়াও এই বিস্ফোরণের জেরে ১১ জন আহত হয়েছেন। ভারতীয় নৌসেনার এই যুদ্ধ জাহাজ ঘিরে গতকালই তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল। মনে করা হচ্ছে প্রাথমিকভাবে ফেরন গ্যাস লিকের জেরে এই দুর্ঘটনা ঘটে যায় জাহাজে।

মঙ্গলবার এই বিস্ফোরণের সময় এসি কম্পার্টমেন্টের লাগোয়া অংশে ছিলেন ৩ নাবিক। বিস্ফোরণের ফলে তাঁদের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয়। মৃতরা হলেন, এমসিপিও ওয়ান কৃষ্ণ কুমার, এমসিপিও টু সুরিন্দর কুমার, এমসিপিও টু একে সিং। উল্লেখ্য, ভারতীয় নৌসেনায় এমসিপিও ওয়ান পদাধীকারীরা সেনার সুবেদার মেজর স্তরের সমকক্ষ। এদিকে, এমন এ ক বিস্ফোরমের ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন নৌসেনা প্রধান আর হরি কুমার সহ নৌসেনার পদস্থ কর্তারা। নৌসেনার তরফে জানানো হয়েছে, 'এই খারাপ সময়ে আমরা সম্পূর্ণভাবে মৃতদের পরিবারের পাশে রয়েছি।' মুম্বইয়ের নাভাল ডকইয়ার্ডে এই দুর্ঘটনার জেরে রীতিমতো আতঙ্ক ছড়ায় গতকাল। এরপর জানা যায় মৃত্যুর ঘটনা। যদিও সেই খবর নৌসেনার তরফে নিশ্চিত করে কিছু বলা হয়নি।

তবে জানা যায়, ভয়াবহ এই ঘটনায় কোনও বড়সড় ক্ষয়ক্ষতি হয়নি জাহাজে। এদিকে, মুম্বইয়ের নৌসেনা ডক ইয়ার্ডে এমন ঘটনায় গতকালই প্রাথমিকভাবে তিনজনের মৃত্যুর খবর আসে। তাঁদের পরিচিতি নিয়ে ছিল ধোঁয়াশা। তবে এদিন পরিচিতি প্রকাশ করেছে ভারতীয় নৌসেনা। ১৯৮৬ সালে আইএনএস রণবীর ভারতীয় নৌসেনায় আসে। ৩০ জন অফিসার ও ৩১০ জন নাবিক নিয়ে পথ চলা শুরু করে ভারতের এই যুদ্ধ জাহাজ।

বন্ধ করুন