বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'ভারতের ইতিহাসের সূচনা দ্রাবিড়ভূমে', ৩২০০ বছর পুরোনো সভ্যতার চিহ্ন মিলল দক্ষিণে
তামিলনাড়ু বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিন (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)
তামিলনাড়ু বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিন (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)

'ভারতের ইতিহাসের সূচনা দ্রাবিড়ভূমে', ৩২০০ বছর পুরোনো সভ্যতার চিহ্ন মিলল দক্ষিণে

  • স্ট্যালিন তামিল বিধানসভায় দাবি করেন, দ্রাবিড়ভূম থেকেই ভারতীয় উপমহাদেশে সভ্যতা এবং ইতিহাসের সূচনা।

তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এসমে স্ট্যালিন দাবি করলেন যে ভারতের দ্রাবিড়ভূমে মানবসভ্যতা উপস্থিত ছিল ৩২০০ বছর আগে। পাশাপাশি ফের একবার তিনি দাবি করলেন ভারতের সবথেকে পুরোনো সভ্যতার জন্ম দক্ষিণ ভারতে। তাঁর দাবি, ভারতের ইতিহাসের সূচনা হয়েছে দক্ষীণ থেকেই। উল্লেখ্য, তিরুনেলভেলি জেলায় মাটির তলা থেকে মেলা একটি কলসে চাল মিলেছে। মার্কিন এক ল্যাবেরটরিতে সেই চালের কার্বন ডেটিং করা হয়। তারপর রিপোর্ট প্রকাশ করে দাবি করা হয় যে সেই কলস সেখানে খ্রিস্টপূর্ব ১১৫৫ বছর পুরোনো। এই রিপোর্টের উল্লেখ করেই স্ট্যালিন তামিল বিধানসভায় দাবি করেন, দ্রাবিড়ভূম থেকেই ভারতীয় উপমহাদেশে সভ্যতা এবং ইতিহাসের সূচনা।

স্ট্যালিন আরও দাবি করেন যে তাঁর দাবি প্রমাণ করতে তামিলনাড়ু সরকার পরীক্ষা চালাবে দক্ষিণ ভারত জুড়ে। প্রথমেই কেরলের পট্টনম বন্দরে এই সংক্রান্ত পরীক্ষা চালানো হবে বলে জানান স্ট্যালিন। স্ট্যালিন বিধানসভায় জানান, তামিলনাড়ুর তামিরপর্ণী নদীর তীরে পোরুনাই অঞ্চলে একটি পাত্র মিলেছে। সেই পাত্রে থাকা শস্যের কার্বন ডেটিং করা হয় আমেরিকার মায়ামির এক ল্যাবে।

এর আগে তুতিকোরিন জেলার আধিচান্দুলারে খনন চালিয়ে প্রাচীন বন্দর খুঁজে পেয়েছিলেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা। দবি করা হয়, যে দুই বন্দরের খোঁজ মেলে তা খ্রিস্টপূর্ব অষ্টম এবং নবম শতাব্দীর। এর থেকে প্রমাণিত যে এত হাজার বছর আগেও কতটা উন্নত ছিল দক্ষিণ ভারতের সভ্যতা। এই সভ্যতাকে তামিরপর্ণী সভ্যতা বলে আখ্যা দেওয়া হয়। এই সব তথ্য সামনে রেখে স্ট্যালিনের দাবি, ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাস নতুন করে লেখা উচিত। এর আগে তামিলনাড়ুর শিবগঙ্গা এলাকায় সভ্যতার চিহ্ন মিলেছিল। তা খ্রিস্টপূর্ব ৪০০ বছর পুরোনো। তবে তামিরপর্ণীর এই সভ্যতার চিহ্ন শিবগঙ্গার থেকেও ৬০০ বছর পুরোনো।

বন্ধ করুন