বাড়ি > ঘরে বাইরে > মোরেটোরিয়াম বিতর্কে দুই সপ্তাহের মধ্যে শীর্ষ আদালতে অবস্থান স্পষ্ট করবে কেন্দ্র
সুপ্রিম কোর্ট (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
সুপ্রিম কোর্ট (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

মোরেটোরিয়াম বিতর্কে দুই সপ্তাহের মধ্যে শীর্ষ আদালতে অবস্থান স্পষ্ট করবে কেন্দ্র

  • বিস্তারিত হলফনামা দেওয়ার নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের। 

মোরেটোরিয়ামের মেয়াদ বৃদ্ধি, সুদের ওপর সুদ মুকুব করা সহ বেশ কিছু ইস্যু নিয়ে দুই সপ্তাহের মধ্যে বিস্তারিত হলফনামা জমা দিতে কেন্দ্রকে নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। এদিন অশোক ভূষণের বেঞ্চ বলে আগামী শুনানি হবে ২৮ সেপ্টেম্বর। 

এদিন এক পিটিশনার পক্ষ থেকে আদালতে বলা হয় যে মোরেটোরিয়ামের মেয়াদ বৃদ্ধি করা উচিত, এছাড়াও শিল্পক্ষেত্র ও ব্যক্তিগত স্তরে ঋণ নিয়েছে যারা, তাদেরকে সাহায্য করা উচিত ও যারা ঋণ চোকাতে পারেননি এই লকডাউন পরবর্তী সময় তাদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা যেন না নেওয়া হয়। এছাড়াও যারা মোরেটোরিয়াম নিয়েছেন, তাদের সিবিল স্কোর (অর্থাৎ লোন সুদ দেওয়ার ক্ষমতার রেটিং) যাতে কমে না যায়, সেই নিয়েও আদালতের কাছে আর্জি জানান তিনি। 

অর্থমন্ত্রকের তরফে সলিসিটার জেনারেল তুষার মেহতা বলেন যে ব্যাঙ্কদের সঙ্গে আলোচনা চলছে, কিভাবে সবদিক বাঁচিয়ে কাজ করা যায়। যারা ধার নিয়েছেন তাদের স্বার্থের কথাও ভাবা হচ্ছে, বলে তিনি আশ্বাস দেন। 

অন্যদিকে যারা ব্যাঙ্ক থেকে ধার নিয়েছেন, তাদের পক্ষে আইনজীবী রাজীব দত্ত বলেন এখনও লোনের ক্ষেত্রে কমপাউন্ড ইন্টারেস্ট নেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন বাস্তবে কোনও সাহায্য করছে না ব্যাঙ্কগুলি। অন্যদিকে নির্মাণ সংস্থাদের তরফে কপিল সিবাল বলেন যে যারা ধার নিয়েছেন, কিন্তু টাকা দেননি তাদের ডাউনগ্রেড করে দেওয়া হচ্ছে। এটা অবিলম্বে বন্ধ করা উচিত বলে তিনি দাবি করেন। 

এদিন ডাউনগ্রেডের বিষয়টি উঠতেই আরবিআই, এসবিআই, ও ব্যাঙ্ক কনসর্টিয়ামের পক্ষ থেকে বলা হয় তাদের একটু সময় দেওয়া হোক এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার জন্য। সবমিলিয়ে দুই সপ্তাহ সময় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট, কিন্তু তুষার মেহতাকে আদালত বলে যে তারা ফের মুলতুবি করতে চায় না। তাই পরবর্তী শুনানিতেই রায় শোনাতে পারে আদালত সব পক্ষের কথা শুনে বলে মনে করা হচ্ছে। 

 

বন্ধ করুন