আন্তর্জাতিক নারী দিবসে দেশের নারী শক্তিকে কুর্নিশ জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।
আন্তর্জাতিক নারী দিবসে দেশের নারী শক্তিকে কুর্নিশ জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

Womens Day 2020: নারীশক্তির প্রতি কুর্নিশ, তেজস্বীনিদের কথা শোনালেন নমো

  • নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে দেশের বেশ কিছু দৃপ্ত নারী চরিত্রের উদ্ধৃতি রবিবার প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে দেশের নারীশক্তিকে কুর্নিশ জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রকাশ করলেন তেজস্বীনিদের ব্যক্তিগত সাফল্যের উজ্জ্বল অধ্যায় এবং বিশেষ দিনে জাতির উদ্দেশে তাঁদের বার্তা।

নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে এমন বেশ কিছু দৃপ্ত নারী চরিত্রের উদ্ধৃতি রবিবার প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

এমনই একজন কলাবতী দেবী তাঁর টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, ‘দেশের বোন, মেয়ে ও পুত্রবধূতের উদ্দেশে বলতে চাই, সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রাণপণ চেষ্টা কখনও বিফল হয় না। তাই বাইরে বেরিয়ে পড়। কেউ তোমার বিরুদ্ধে কিছু বললে কানে তুলো না। লক্ষ্যে পৌঁছতে হলে পিছনে ফিরে তাকিও না।’

নিজের কথা বলতে গিয়ে কলাবতী জানিয়েছেন, ‘আমি যেখানে থাকতাম, সেই পরিবেশ অত্যন্ত নোংরা ছিল। কিন্তু আমার দৃঢ় বিশ্বাস ছিল, পরিচ্ছন্নতার মাধ্যমে তা পরিবর্তন করতে পারব। ঠিক করলাম, মানুষকে বোঝাতে হবে। এরপর শৌচাগার গড়তে অর্থ সংগ্রহ করলাম। শেষ পর্যন্ত সাফল্য পেলাম।’

বিহারের মুঙ্গের জেলার মাশরুম চাষি বীণা দেবী সোজাসাপ্টা জানিয়েছেন, ইচ্ছে থাকলেই উপায় বের হয়। তাঁর দাবি, কাজের মাধ্যমে তিনি স্বাধীনতা ও নবজীবনের স্বাদ পেয়েছেন। তিনি টুইট করেছেন, ‘আজ সারা দেশের সামনে এক উজ্জ্বল উদাহরণ তুলে ধরেছেন মুঙ্গেরের মহিলারা। বাড়িতে চাষ করা থেকে হাটে পণ্য বেচা, সমস্ত দায়িত্ব তাঁরা নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন। তাই সারা দেশের মহিলাদের বলতে চাই, বেরিয়ে পড়ুন, নিজে হাতে কাজ করুন আর দেখুন কী ভালোই না লাগে!’

তিনি আরও বলেছেন, ‘বর্তমানে কোনও ক্ষেত্রেই পুরুষের চেয়ে পিছিয়ে নেই মেয়েরা। দেশের নারীশক্তি সুসংবদ্ধ হলে ঘর থেকেই তাঁরা যাত্রা শুরু করতে পারেন। চাষ করার জন্য আমি সম্মান পেয়েছি। আমি কালক্রমে সরপঞ্চ পদে নির্বাচিত হয়েছি। আনন্দ লাগছে জেনে যে, এখন আমার মতো বহু মহিলাই প্রশিক্ষণের সুযোগ পাচ্ছেন।’

বন্ধ করুন