বাড়ি > ঘরে বাইরে > IT Return File: IT রিটার্নে দেখানো নেই উচ্চমূল্যের লেনদেন? শোধরাতে মিলবে ১১ দিন, নয়তো ঝুলবে শাস্তির খাঁড়া
আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত ভুল সংশোধনের সময় দেওয়া হয়েছে (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স) 
আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত ভুল সংশোধনের সময় দেওয়া হয়েছে (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স) 

IT Return File: IT রিটার্নে দেখানো নেই উচ্চমূল্যের লেনদেন? শোধরাতে মিলবে ১১ দিন, নয়তো ঝুলবে শাস্তির খাঁড়া

  • আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে সেই করদাতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করবে আয়কর দফতর।

উচ্চমূল্যের লেনদেন হয়েছে? অথচ তা ইনকাম ট্যাক্স রিটার্নে (আইটি রিটার্ন) দেখানো নেই? সেই ভুল শুধরে নেওয়ার জন্য ১১ দিন সময় দিল আয়কর দফতর। একইসঙ্গে উচ্চমূল্যের লেনদেন দেখানো হলেও তা নিয়ম মোতাবেক না হলে ওই ১১ দিনের মধ্যে ভুল শুধরে নিতে হবে বলে জানানো হয়েছে। শুধুমাত্র ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষের উচ্চ লেনদনের ক্ষেত্রেই আগামী ২০ জুলাই থেকে সেই ই-ক্যাম্পেন শুরু হচ্ছে।  

আয়কর দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, যে করদাতারা রিটার্ন ফাইল করেননি বা ভুল রিটার্ন ফাইল করেছেন, তাঁরা যাতে নিজে থেকেই এগিয়ে আসেন এবং কোনও নোটিশ পাঠাতে না হয়, সেজন্য এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ব্যাঙ্ক, মিউচুয়াল ফান্ড, ট্যাক্স ডিডাকশন অ্যাট সোর্স (টিডিএস), ট্যাক্স কালেকশন অ্যাট সোর্সের (টিসিএস) মতো বিভিন্ন এজেন্সি আর্থিক লেনদেনের যে বিবরণ দাখিল করে, সেই তথ্য ব্যবহার করে খোঁজা হয়েছে, কারা আইটি রিটার্ন ফাইল করেননি।

এসএমএস বা ইমেলের মাধ্যমে আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে সেই করদাতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করবে আয়কর দফতর। নিজেদের লগইন আইডি (প্যান নম্বর) এবং রেজিস্টার্ড পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে আয়কর দফতরের নিজেদের উচ্চমূল্যের লেনদেন সংক্রান্ত দেখতে পারবেন করদাতারা। অনলাইনেই আয়কর দফতরের প্রশ্নেরও জবাব দিতে পারবেন। তাঁদের আয়কর দফতরের অফিসে যেতে হবে না।

সেন্ট্রাল বোর্ড ডিরেক্ট ট্যাক্সের (সিবিডিটি) বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, অনলাইনে জবাব দেওয়ার জন্য অনলাইনে পাঁচটি অপশন পাবেন করদাতারা। সেই অপশনগুলি হল - ১) তথ্য সঠিক, ২) তথ্য পুরোপুরি সঠিক নয়, ৩) অন্য কোনও ব্যক্তি বা বছরের সংক্রান্ত তথ্য, ৪) তথ্য অন্য কোনও ক্ষেত্রে আগেই দেখানো হয়েছে বা একই তথ্য, ৫) তথ্য দেওয়া হয়নি। সেই জবাব অনলাইনে দেওয়ার পর করদাতার নিজেদের আইটি রিটার্ন ফাইল করতে পারবেন বা ভুল শুধরে নিতে পারবেন।

বিষয়টি নিয়ে আইটি রিটার্ন ফাইল করার একটি পোর্টালের (Taxspanner.com) সিইও সুধীর কৌশিক জানিয়েছেন, যাবতীয় ছাড় বাদ দিয়ে মোট বার্ষিক আয় ২.৫ লাখ টাকার বেশি হওয়ার কারণে যাঁদের আইটি রিটার্ন ফাইল করতে হয়, তাঁদের সুযোগ দিচ্ছে আয়কর দফতর। বা যাঁরা ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে যাঁরা উচ্চমূল্যের লেনদেন করেছেন, কিন্তু আইটি রিটার্নে দেখাননি বা রিটার্নে ভুল আছে বা তা ভেরিফায়েড নয়, তাঁদের সেই সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু নির্ধারিত তারিখের পরও সেই কাজ না করলে রিটার্ন ফাইল না করা বা কর না দেওয়ার জন্য আয়কর নোটিশ মিলতে পারে। এমনকী শাস্তির মুখেও পড়তে হতে পারে বলে জানান তিনি।

বন্ধ করুন