জম্মু ও কাশ্মীরে সোশ্যাল মিডিয়ার উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি থাকল।
জম্মু ও কাশ্মীরে সোশ্যাল মিডিয়ার উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি থাকল।

জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট চালু হলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘না’ প্রশাসনের

  • সোশ্যাল মিডিয়ায় সন্ত্রাসবাদী সংগঠন সংক্রান্ত বেশ কিছু পোস্ট ও মেসেজ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
  • এই কারণে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের দূরে রাখার নীতি নিয়েছে কেন্দ্র।

জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট পরিষেবা ফিরলেও সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের উপরে নিষেধাজ্ঞা এখনও বহাল রাখল কেন্দ্র।

কিছু দিন আগে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট ব্যবহারের উপরে চাপানো নিষেধাজ্ঞা পুনর্বিবেচনা করতে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল। সেই নির্দেশ অন্তত ৭ দিন বলবত্ থাকবে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জম্মু অঞ্চলের কয়েক জায়গায় মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা এবং জরুরি পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার দফতরে ব্রডব্যান্ড চালু করলেও গোটা কাশ্মীর এবং জম্মুর বেশ কিছু অংশে এখনও এই পরিষেবা অমিল।

তিন পাতার নির্দেশনামায় ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের হাসপাতাল, ব্যাঙ্ক ও সরকারি দফতর-সহ জরুরি পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলিতে ব্রডব্যান্ড চালু করার নির্দেশ দেয় কেন্দ্র। পর্যটন উন্নয়নের স্বার্থে হোটেল এবং পর্যটবন সংস্থার অফিসেও ইন্টারনেট পরিষেবা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র।

তবে পরিষেবা চালু করার আগে প্রয়োজনী ফায়ারওয়াল-এর ব্যবস্থা রাখা এবং ওয়েহবসাইট হোয়াইট লিস্টিংয়ের ব্যবস্থা করতে সার্ভিস প্রোভাইডার সংস্থাগুলিকে নির্দেশ দেয় কেন্দ্র।

তবে এত কিছুর পরেও সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের দূরে রাখার নীতি নিয়েছে কেন্দ্র। নির্দেশনামায় স্পষ্ট উল্লেখ করা হয়েছে, ‘সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের উপরে সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে। শুধুমাত্র পরিচিতদের মধ্যে যোগাযোগ এবং আপাতত ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক ব্যবহার করার অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে।’

শুধু তাই নয়, নির্দেশে বলা হয়েছে, যে সমস্ত সংস্থা ও সরকারি দফতরে ইন্টারনেট পরিষেবা দেওয়া হয়েছে, তা অপব্যবহার রোখার দায়ও বর্তাবে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের উপরে।

বলা হয়েছে, ই-ব্যাঙ্কিং-সহ হোয়াইট লিস্টেড ওয়েবসাইট-সহ ২-জি মোবাইল পোস্টপেড কানেকশনের সুবিধা দেওয়া হচ্ছে শুধু জম্মু, সাম্বা, কাঠুয়া, উধমপুর ও রিয়াসি জেলাতে।

নির্দেশে আরও বলা হয়েছে যে, সোশ্যাল মিডিয়ায় সন্ত্রাসবাদী সংগঠন সংক্রান্ত বেশ কিছু পোস্ট ও মেসেজ উদ্ধার করেছে পুলিশ, যার সাহায্যে উপত্যকায় হিংসা ছড়ানোর ছক কষা হয়েছে। সেই কারণেই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের উপরে এত কড়াকড়ির সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট ব্যবহার সংক্রান্ত আবেদনের ভিত্তিতে জানায়, সংবিধানের ১৯ ধারায় ইন্টারনেট ব্যবহার মৌলিক অধিকারের মধ্যে পড়ে। তার জেরেই উপত্যকায় ইন্টারনেট পরিষেবা ফের চালু করার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন।

বন্ধ করুন