বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আজও ভারতে আছে জিম করবেটের সেই মানুষখেকো বাঘ শিকারের বন্দুক, দেখতে পাবেন পর্যটকরা
জিম করবেটের এই সেই বন্দুক। হিন্দুস্তান টাইমস

আজও ভারতে আছে জিম করবেটের সেই মানুষখেকো বাঘ শিকারের বন্দুক, দেখতে পাবেন পর্যটকরা

  • বিগতদিনে পর্যটকরা বন্দুক দেখতে নৈনিতালে মোহিত নেগির বাড়িতে আসতেন। মাথা পিছু ১০ টাকা করে নেওয়া হত।কালাধুঙ্গি গ্রাম বিকাশ সমিতিও চাইছে বন্দুক দেখতে আবার ভিড় জমাক পর্যটকরা। এতে স্থানীয় বাসিন্দাদেরও আর্থ সামাজিক পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

মোহন রাজপুত

এডওয়ার্ড জেমস করবেট। অনেকের কাছেই তিনি জিম করবেট (Jim Corbett) নামেই পরিচিত। উত্তরপ্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডের বিভিন্ন এলাকায় একাধিক মানুষখেকো বাঘ ব্রিটিশ আমলে নিকেশ করেছিলেন তিনি। সেই ব্রিটিশ শিকারী জিম করবেট আর নেই। কিন্তু আজও ভারতে থেকে গিয়েছে তাঁর সেই বন্দুক। ২৫ জুলাই জিম করবেটের ১৪৭তম জন্মদিবস পালিত হয়েছে। সেই করবেট সাহেবের বন্দুক এবার পর্যটকদের জন্য দেখানো হবে।

ভারত ছেড়ে যাওয়ার আগে জিম করবেট তাঁর ব্যবহার করা একনলা বন্দুকটি কুমায়ূনে তাঁর এক সঙ্গীর কাছে দিয়ে যান। সেই বন্দুক বর্তমানে নৈনিতাল জেলার কালাধুঙ্গি থানায় রাখা রয়েছে।করবেটের সেই ঘনিষ্ঠ সঙ্গীর নাতি বন্দুকের লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেছিলেন। এবার নৈনিতাল বেড়াতে গেলে সেই বন্দুকটি দেখতে ভুলবেন না।

করবেট ওই বন্দুকটি শের সিং নেগির কাছে দিয়ে গিয়েছিলেন। এরপর তিনি কেনিয়া চলে যান। ২০১৯ সালে নেগির নাতি সেটি থানায় জমা দেন। মোহিত নেগি নামে ওই ব্যক্তি জানিয়েছেন, এই বন্দুকের উত্তরাধিকারী হিসাবে আমি জেলা শাসকের কাছে লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেছিলাম। আমি লাইসেন্স পেলেই এটা নিয়ে নেব। স্বাধীনতার পরে জিম করবেট এই বন্দুকটি আমার দাদুকে দিয়ে যান। করবেট সাহেবের স্মৃতিতে সেটি আমার দাদু রেখে দিয়েছিলেন। দাদুর মৃত্যুর পরে বাবা ত্রিলোক সিং নেগি এটি পর্যটকদের দেখাতেন।বাবার মৃত্যুর পরে এটি আমি থানায় জমা দিয়েছিলাম।

মোহিত বর্তমানে ট্যাক্সি চালান। তিনি জানিয়েছেন, অর্থনৈতিক সমস্যার জন্য বন্দুকটি নিজের কাছে রাখতে পারছিলাম না। একটা সময় পর্যটকরা বন্দুক দেখতে আমাদের বাড়িতে আসতেন। মাথা পিছু আমরা ১০ টাকা করে নিতাম।কালাধুঙ্গি গ্রাম বিকাশ সমিতিও চাইছে বন্দুক দেখতে আবার ভিড় জমাক পর্যটকরা। এতে স্থানীয় বাসিন্দাদেরও আর্থ সামাজিক পরিস্থিতির উন্নতি হবে। 

  

বন্ধ করুন