বাড়ি > ঘরে বাইরে > পুরনো হারেই হস্টেলের ফি দেবেন JNU পড়ুয়ারা, নির্দেশ হাইকোর্টের
হস্টেল ফি বাড়ানোর বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেন জেএনইউ পড়ুয়ারা।শুক্রবার তাঁদের দাবিকে মান্যতা দিল আদালত।
হস্টেল ফি বাড়ানোর বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেন জেএনইউ পড়ুয়ারা।শুক্রবার তাঁদের দাবিকে মান্যতা দিল আদালত।

পুরনো হারেই হস্টেলের ফি দেবেন JNU পড়ুয়ারা, নির্দেশ হাইকোর্টের

যে সমস্ত পড়ুয়ার এখনও পরবর্তী সেমেস্টারের জন্য রেজিস্ট্রেশন হয়নি, তাঁদের তা করার সুযোগ দিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের বিচারপতি রাজীব শাকধের। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে এই নথিভুক্তিকরণ প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে বলেও নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

বর্ধিত নয়, পুরনো হারেই বিশ্বিদ্যালয়ের ফি জমা দেবেন পড়ুয়ারা। শুক্রবার জেএনইউ কর্তৃপক্ষকে এমনই নির্দেশ দিল দিল্লি আদালত।

পাশাপাশি যে সমস্ত পড়ুয়ার এখনও পরবর্তী সেমেস্টারের জন্য রেজিস্ট্রেশন হয়নি, তাঁদের তা করার সুযোগ দিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের বিচারপতি রাজীব শাকধের। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে এই নথিভুক্তিকরণ প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে বলেও নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে আবেদন জানিয়েছিলেন সভাপতি ঐশী ঘোষ-সহ জেএনইউ ছাত্র সংগঠনের নেতারা।

এ দিন সেই আবেদনের শুনানিতে কর্তৃপক্ষের তরফে অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল পিঙ্কি আনন্দ আদালতের কাছে ছাত্রদের আবেদন সরাসরি খারিজ করার অনুরোধ জানান। তাঁর যুক্তি ছিল, ৯০% পড়ুয়া বর্ধিত ফি নিয়ে আপত্তি জানাননি এবং তা যথা সময়ে মিটিয়ে দিয়েছেন।

সরকারি কৌঁসুলির যুক্তি উড়িয়ে দিয়ে বিচারপতি আনন্দ পালটা প্রশ্ন করেন, ‘কোনও উপায় না থাকলে আপনি কী করতেন?'


আরও পড়ুন: ‘দেশদ্রোহী স্লোগান’ রুখতে জেএনইউ, জামিয়ায় বিশেষ সংরক্ষণ চান মন্ত্রী

পাশাপাশি, ফি বাড়ানোর কারণ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের চুক্তিবদ্ধ কর্মীদের বেতন মেটানোর যে যুক্তি কর্তৃপক্ষের আইনজীবী পেশ করেন, তা-ও উড়িয়ে দেয় আদালত।

বিচারপতি আনন্দ বলেন, ‘শিক্ষাক্ষেত্র ছেড়ে বেরিয়ে যেতে পারে না সরকার। প্রশাসনকে জনশিক্ষা খাতে আর্থিক সহায়তা করতেই হবে।চুক্তিবদ্ধ কর্মীদের বেতন দেওয়ার দায়িত্ব পড়ুয়াদের নয়। অন্য কাউকে সে ব্যবস্থা করতে হবে।’

আইনজীবী অভীক চিমনি মারফত্ হাইকোর্টে জেএনইউ কর্তৃপক্ষের হস্টেলের ফি বৃদ্ধির পাশাপাশি ছাত্রদের সংরক্ষিত অধিকার ও হস্টেলের ঘর বণ্টন প্রক্রিয়ায় হস্তক্ষেপ করা এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনে ছাত্র সংগঠনের অন্তর্ভুক্তি হ্রাস করার মতো একগুচ্ছ অভিযোগ জানিয়েছে ছাত্র সংগঠন। ইতিমধ্যে হস্টেল ফি বাড়ানোর বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেন জেএনইউ পড়ুয়ারা।

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে দিল্লি হাইকোর্ট।করতেন?’

বন্ধ করুন