বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শিবসেনার রক্তচক্ষু, কাগজ দিয়ে নাম ঢাকল মুম্বইয়ের করাচি বেকারি
করাচি বেকারি
করাচি বেকারি

শিবসেনার রক্তচক্ষু, কাগজ দিয়ে নাম ঢাকল মুম্বইয়ের করাচি বেকারি

  • নীতিন নন্দগাঁওকর ওই দোকানে গিয়ে বলে যে তিনি করাচিকে ঘৃণা করেন যেহেতু তারা সন্ত্রাসবাদীদের আশ্রয় দেয়

মুম্বইয়ে ব্যবসা করছ, এদিকে নাম করাচি বেকারি! অবিলম্বে বদলাও। এভাবেই মুম্বইয়ের বিখ্যাত করাচি বেকারিকে হুমকি দিল শিবসেনা সেনা নীতিন নন্দগাঁওকর। তড়িঘড়ি কাগজ দিয়ে নামফলক ঢেকেছে মুম্বইয়ের বান্দ্রার এই দোকানটি। এই নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ার পর অবশ্য শিবসেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত বলেছেন যে এটা দলের অবস্থান নয়। 

নীতিন নন্দগাঁওকর ওই দোকানে গিয়ে বলে যে তিনি করাচিকে ঘৃণা করেন যেহেতু তারা সন্ত্রাসবাদীদের আশ্রয় দেয়। ভাইরাল হওয়া ভিডিওয়ে দেখা যাচ্ছে যে সেনা নেতা বলছে যে দেশভাগের পর এখানে এসে ব্যবসা করছেন, সেটা ভালো কথা কিন্তু করাচি নামটা বদলাতে হবে। বেকারির মালিক তখন বোঝানোর চেষ্টা করেন যে এর সঙ্গে করাচির কোনও সম্পর্ক নেই, শুধু নামটাই এমন। কিন্তু নীতিন সেই কথা শোনেনি। সে বলে যে সময় দিচ্ছি, কিন্তু নাম বদলাতেই হবে। যা খুশি নাম দাও, পূর্বপুরুষদের নাম দাও, কিন্তু এই করাচি নাম চলবে না। এ ছাড়াও দোকানের নাম মারাঠিতে লেখার দাবি জুড়ে দেয় সে। শুধু সাইনবোর্ডে না দোকানের রেজিস্ট্রেশনের নথিতেও নাম বদলাতে হবে বলে সে দাবি করে। 

এরপরেই কোনও ঝুঁকি না নিয়ে দোকানের সাইনবোর্ড ঢেকে দিয়েছে মালিকরা। তবে এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর থেকেই প্রতিবাদের রোল উঠেছে টুইটারে। শিবসেনার জোট সঙ্গী কংগ্রেসের নেতা সঞ্জয় নিরুপম বলেছেন যে উদ্ধব ঠাকরের এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা উচিত। নিরুপমের মতে ভারতে বিক্রি হওয়া চিনা খাদ্যের সঙ্গে যেমন চিনের যোগ নেই, তেমনই করাচি বেকারির সঙ্গে করাতির যোগ নেই। 

এরপর শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত টুইটারে বলেন যে গত ৬০ বছর ধরে করাচি বেকারি ও করাচি সুইটস ভারতে আছে। এর সঙ্গে পাকিস্তানের যোগ নেই। এখন নাম বদল করার দাবি অর্থহীন। এটা শিবসেনার অবস্থান নয়। তবে শিবসৈনিক নীতিন সেই কথার সঙ্গে একমত হবেন কিনা সেটাই দেখার। 

বন্ধ করুন