বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সাক্ষাৎকারের সঞ্চালিকা গুজরাতি জানতে পেরেই মোদী কী বলেছিলেন? উঠে এল ২০১৮-এর এক কাহিনি
করিশ্মা মেহতা ২০১৮ সালের সেই সাক্ষাৎকারের ছবি শেয়ার করে লিঙ্কড ইন-এ।

সাক্ষাৎকারের সঞ্চালিকা গুজরাতি জানতে পেরেই মোদী কী বলেছিলেন? উঠে এল ২০১৮-এর এক কাহিনি

  • 'হিউম্যানস অফ বম্বে' বিভিন্ন মানুষের জীবন ও তার আশাপশের কথা নিয়ে গড়ে ওঠা কাহিনিকে তুলে ধরে। এটি একটি ব্লগ। এখানে এক এক করে কাহিনি তুলে ধরা হয়। আর ব্লগের কাজেই ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাক্ষাৎকার নিতে যান করিশ্মা মেহতা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অন্যতম নামী পেজ 'হিউম্যানস অফ বম্বে'। আর সেই পেজের নেপথ্য নাম করিশ্মা মেহতা। সদ্য করিশ্মা লিঙ্কডইন-এ তাঁর ব্লগে ২০১৮ সালের এক কাহিনি তুলে ধরেন। সেবার তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন। আর প্রধানমন্ত্রী যখনই বুঝতে পারেন যে সাক্ষাৎকারের সঞ্চালিকা একজন গুজরাতি, তখনই তিনি কী বলেছিলেন, সেই কথাটি ব্লগে শেয়ার করেন করিশ্মা।

উল্লেখ্য, 'হিউম্যানস অফ বম্বে' বিভিন্ন মানুষের জীবন ও তার আশাপশের কথা নিয়ে গড়ে ওঠা কাহিনিকে তুলে ধরে। এটি একটি ব্লগ। এখানে এক এক করে কাহিনি তুলে ধরা হয়। আর ব্লগের কাজেই ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাক্ষাৎকার নিতে যান করিশ্মা মেহতা। করিশ্মা সেই সাক্ষাৎকারের স্মৃতি চারণা করেছেন সদ্য। বলছেন, প্রধানমন্ত্রী যখনই জানতে পারেন যে, তাঁর সাক্ষাৎকার নিতে আসা মহিলা একজন গুজরাতি, তখনই তিনি সঙ্গে সঙ্গে জিজ্ঞাসা করে বসেন 'কেম ছো মেহতাজি?' উল্লেখ্য, গুজরাতি ভাষায় 'কেমছো' কথার অর্থ হল 'কেমন আছেন?' লিঙ্কডইন-এ শেয়ার করা এই ঘটনার কথা জানিয়ে করিশ্মা জানান, তখন তাঁর বয়স ২৭ বছর। তিনি লিখছেন, ' আমার সুযোগ হয়েছিল দেশের প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎকার নেওয়ার। ২২ মিনিটের সাক্ষাৎকার ছিল। আর ওই ২২ মিনিট কেরিয়ার পাল্টে দিয়েছিল আমার।'

এর পরের অংশে করিশ্মা লেখেন,' এরপর যা ছিল তা হল আমাদের কাজের স্বীকৃতি। তবে হ্যাঁ, ঘৃণার ঘূর্ণি (একটি জনপ্রিয় যুব পত্রিকার প্রচ্ছদ আমাদেরকে একটি ভয়ঙ্কর শিরোনাম দিয়ে কভারে রেখেছিল) জুটেছিল, অভিযোগ এবং সম্পূর্ণ একমুখী অপবাদ পেয়েছিলাম। আমি অনুমান করি যে আমার জীবনের এটাই ছিল একটি পয়েন্ট। যা আমাকে শিখিয়েছে নীরবতাই শ্রেষ্ঠ এবং কাজই সবসময় কথা বলা উচিত।' করিশ্মা জানান, আসন্ন সময়ে তিনি এই সাক্ষাৎকারটি নিয়ে তিনি আরও অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরবেন। উল্লেখ্য, তাঁর বক্তব্যে করিশ্মা স্পষ্টই জানান যে ওই সাক্ষাৎকার তাঁকে বহু কটাক্ষ এনে দিয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে একই সঙ্গে শিখিয়েছে বহুকিছু।

বন্ধ করুন