বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কর্নাটক পঞ্চায়েত নির্বাচনে পাল্লা ভারি বিজেপি সমর্থিত প্রার্থীদের
জেপি নড্ডার সঙ্গে ইয়েদুরাপ্পা
জেপি নড্ডার সঙ্গে ইয়েদুরাপ্পা

কর্নাটক পঞ্চায়েত নির্বাচনে পাল্লা ভারি বিজেপি সমর্থিত প্রার্থীদের

সরাসরি দলীয় প্রতীকে ভোট হয়নি পঞ্চায়েত স্তরে। 

দলীয় ব্যানারে হয়নি পঞ্চায়েত নির্বাচন। ফলত কর্নাটকে গ্রামীন ভোটের ফল প্রকাশ হওয়া শুরু হতেই জয়ের দাবি করতে থাকল শাসক বিজেপি ও দুই বিরোধী দল কংগ্রেস ও জেডিএস। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, মোটের ওপর বেশি সংখ্যায় জিতেছে বিজেপি সমর্থিত প্রার্থীরা। চূড়ান্ত ফলাফল যদিও এখনও প্রকাশিত হয়নি। 

সবমিলিয়ে ৩০ জেলায় ৫২৭৮টি গ্রাম পঞ্চায়েতে ভোট হয়েছিল ডিসেম্বরের ২২ ও ২৭ তারিখ। ইভিএম নয়, বিদার ছাড়া সব জেলায় ব্যালট পেপারে ভোট হয়েছে। তাই ফল আসতে গভীর রাত হয়ে যাবে। বৃহস্পতিবার সকালের আগে চূড়ান্ত ফলাফল জানা যাবে না। আগেই আট হাজার আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফলাফল ঘোষিত হয়েছে। বাকি ৮২৬১৬ আসনের মধ্যে বিজেপি সমর্থিতরা জিতেছেন ১২৭৯৫ আসনে। কংগ্রেস সমর্থিতরা জিতেছেন ৯৫৪৫ আসনে ও জেডিএস সমর্থিতরা জিতেছেন ৪৩০১ আসনে। 

তবে যেহেতু সরাসরি দলীয় প্রতীকে ভোট হয়নি, তিনটি দলই বলছে যে সবচেয়ে বেশি আসন তারা জিতেছে। নিজের দলের জয় ঘোষণা করে কংগ্রেস নেতা তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া বলেন যে গ্রামীন ভারত ফের তাঁর দলের ওপর আস্থা রেখেছে। তবে বিজেপি ভয় ও অর্থ দেখিয়ে তাঁদের জয়ী প্রার্থীদের দলে টানতে চাইছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। এই অভিযোগ যদিও খণ্ডন করেছে বিজেপি। অন্যদিকে জেডিএসের দাবি যে তাদের দলের সমর্থিত প্রার্থীরা সবচেয়ে বেশি আসনে জিতেছেন। 

তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা জনতা দল সেকুলারের দাবিকে বিশেষ আমল দিতে নারাজ। তাদের মতে জেডিএস অনেকটা পিছিয়ে। সবচেয়ে আগে বিজেপি, একটু পিছিয়ে কংগ্রেস। তবে সব আসনে ফলাফল ঘোষিত হলেই সম্পূর্ণ চিত্রটি সামনে আসবে বলে তাঁরা মনে করেন। 

বন্ধ করুন