বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বন্ধ দোকানপাট, সরকারি অফিসে হাজিরা কম, শ্রীনগরে বিতর্কিত এনকাউন্টারের প্রতিবাদ
এনকাউন্টারে সাধারণ মানুষের মৃত্যুর প্রতিবাদে কাশ্মীরে বন্ধ দোকানপাট. (AP Photo) (AP)
এনকাউন্টারে সাধারণ মানুষের মৃত্যুর প্রতিবাদে কাশ্মীরে বন্ধ দোকানপাট. (AP Photo) (AP)

বন্ধ দোকানপাট, সরকারি অফিসে হাজিরা কম, শ্রীনগরে বিতর্কিত এনকাউন্টারের প্রতিবাদ

  • এই ঘটনাকে ঘিরে গত কয়েকদিন ধরেই দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়ায় উপত্য়কায়। অশান্তি এড়াতে বিভিন্ন এলাকায় ব্যপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

কাশ্মীরের হায়দরপোরা অপারেশনে সোমবার দুজন সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে এই অভিযোগ তুলে ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে উপত্যকায়। এদিকে রাজনৈতিক নেতারা ইতিমধ্যেই দাবি করেছেন হায়দরপোরা অপারেশনে মৃত ব্যক্তিদের দেহ তাঁদের পরিবারের হাতে তুলে দিতে হবে। এদিকে অপারেশনের নাম করে সাধারণ মানুষকে হত্যা করা হচ্ছে এই অভিযোগ তুলে শুক্রবার কাশ্মীরে কার্যত বনধ পালিত হয়। শহর ও শহরতলিতে অধিকাংশ দোকান ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানই বন্ধ ছিল। তবে প্রধান রাস্তাগুলিতে গাড়ি চলাচল করেছে। মূলত হুরিয়ত কনফারেন্সের ডাকেই এই বনধ পালিত হয়। 

এদিকে এই ঘটনাকে ঘিরে গত কয়েকদিন ধরেই দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়ায় উপত্য়কায়। অশান্তি এড়াতে বিভিন্ন এলাকায় ব্যপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এদিকে সরকারি অফিসগুলিতে হাজিরা এদিন অনেকটাই কম ছিল। তবে এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, সেভাবে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা হয়নি। অতিরিক্ত বাহিনী এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে। শান্তিতেই দিনটা কেটেছে। এদিকে দুজন সিভিলিয়ানের দেহ আগেই মধ্যরাতে কবরস্থ করা হয়েছিল। এবার অপর এক সিভিলিয়ান আমির আহমেদের দেহ ফেরানোর ব্যাপারেও দাবি তুলেছে হুরিয়ত কনফারেন্স। 

প্রাক্তন বিধায়ক তথা শিয়া নেতা রুহুলা মেহেদি হায়দরপোরা অপারেশন নিয়ে নতুন করে প্রশ্ন তোলা শুরু করেছেন। তাঁর প্রশ্ন, এনকাউন্টারে মৃত আমিরের দেহ কি তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে? চতুর্থজন যাকে হত্যা করা হয়েছে তার পরিচয় কী? অন্যদিকে তৃতীয় ব্য়ক্তি যাঁকে অপারেশনে হত্যা করা হয়েছিল তাঁর দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন শ্রীনগরের মেয়রও।

 

কাশ্মীরের হায়দরপোরা অপারেশনে সোমবার দুজন সাধারণ মানুষের মৃত্যুকে ঘিরে ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে উপত্যকায়। এদিকে রাজনৈতিক নেতারা ইতিমধ্যেই দাবি করেছেন হায়দরপোরা অপারেশনে মৃত ব্যক্তিদের দেহ তাঁদের এলাকায় ফেরাতে হবে। এদিকে অপারেশনের নাম করে সাধারণ মানুষকে মারা হচ্ছে এই অভিযোগ তুলে শুক্রবার কাশ্মীরে কার্যত বনধ পালিত হয়। শহর ও শহরতলিতে অধিকাংশ দোকান ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানই বন্ধ ছিল। তবে প্রধান রাস্তাগুলিতে গাড়ি চলাচল করেছে। মূলত হুরিয়ত কনফারেন্সের ডাকেই এই বনধ পালিত হয়। 

এদিকে এই ঘটনাকে ঘিরে দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়ায় উপত্য়কায়। অশান্তি এড়াতে বিভিন্ন এলাকায় ব্যপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এদিকে সরকারি অফিসগুলিতে হাজিরা এদিন অনেকটাই কম ছিল। তবে একজন পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, সেভাবে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা হয়নি। অতিরিক্ত বাহিনী এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে। তবে শান্তিতেই দিনটা কেটেছে। এদিকে দুজন সিভিলিয়ানের দেহ আগেই মধ্যরাতে কবরস্থ করা হয়েছিল। এবার অপর এক সিভিলিয়ান আমির আহমেদের দেহ ফেরানোর ব্যাপারেও দাবি তুলেছে হুরিয়ত কনফারেন্স। 

প্রাক্তন বিধায়ক তথা শিয়া নেতা রুহুলা মেহেদি হায়দরপোরা অপারেশন নিয়ে নতুন করে প্রশ্ন তোলা শুরু করেছেন। তাঁর প্রশ্ন, আমিরের দেহ কি তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে? চতুর্থজন যাকে হত্যা করা হয়েছে তার পরিচয় কী? অন্যদিকে তৃতীয় ব্য়ক্তি যাঁকে অপারেশনে হত্যা করা হয়েছিল তাঁর দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন শ্রীনগরের মেয়র।

|#+|

 

বন্ধ করুন