বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কেরালা সোনা পাচারকাণ্ডে যুক্ত দাউদ, তানজানিয়ায় বিশাল চক্রের হদিশ
এনআইএ-র দাবি, সোনা পাচার মামলায় অভিযুক্তদের অনেকে দাউদের দলের সঙ্গে বেশ কয়েক বার তানজানিয়া সফরে গিয়েছিল।
এনআইএ-র দাবি, সোনা পাচার মামলায় অভিযুক্তদের অনেকে দাউদের দলের সঙ্গে বেশ কয়েক বার তানজানিয়া সফরে গিয়েছিল।

কেরালা সোনা পাচারকাণ্ডে যুক্ত দাউদ, তানজানিয়ায় বিশাল চক্রের হদিশ

  • সোনা পাচার মামলায় অভিযুক্তদের অনেকেই দাউদের দলের সঙ্গে বেশ কয়েক বার তানজানিয়া সফরে গিয়েছিল।

কেরালা সোনা পাচারকাণ্ডে এবার নাম জড়াল পাকিস্তানে আশ্রিত মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের। কোচির আদালতে এমনই দাবি জানিয়েছে তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ। 

এনআইএ-র দাবি, সোনা পাচার মামলায় অভিযুক্তদের অনেকেই দাউদের দলের সঙ্গে বেশ কয়েক বার তানজানিয়া সফরেও গিয়েছিল। সে দেশে দাউদের বিশাল নেটওয়ার্ক রয়েছে বলেও জানিয়েছে গোয়েন্দা সংস্থা।

এর আগে ইউএপিএ আইনের একাধিক ধারাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আবেদন করেছিল অভিযুক্তরা। তাদের যুক্তি, সোনা পাচার আদতে আর্থিক দুর্নীতির শ্রেণিভুক্ত এবং তা কোনও মতেই সন্ত্রাসের সঙ্গে যুক্ত নয়। তার পালটা যুক্তিতে এনআইএ জানায়, অভিযুক্তদের কারও কারও দেশদ্রোহী গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগ রয়েছে।

সেই যুক্তি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে সংস্থা জানিয়েছে, মামলায় পাঁচ নম্বর অভিযুক্ত কে টি রামিস এবং ১৩ নম্বর অভিযুক্ত এম শরাফউদ্দিন একাধিক বার দাউদ ঘনিষ্ঠ ফিরোজ ওয়েসিসের সঙ্গে তানজানিয়ায় দেখা করে ভারতে আগ্নেয়াস্ত্র পাচারের ছক কষেছিল। 

এর আগে রামিসকে পাচার হওয়া রিভলভার-সহ কোঝিকোড় বিমানবন্র থেকে গ্রেফচার করেছিল পুলিশ। তবে সেই সময় নিজেকে শ্যুটিং অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য বলে পরিচয় দিয়ে জরিমানা দিয়ে ছাড়া পায় সে। 

অন্য এক অভিযুক্ত মহম্মদ আলি সম্পর্কে এনআইএ-র অভিযোগ, বিতর্কিত প্রশ্নপত্র তৈরি করার জন্য এক কলেজ শিক্ষকের পাত কেটে ফেলেছিল অভিযুক্ত। তার সঙ্গে সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীর সংযোগ রয়েছে বলেও দাবি করেছে গোয়েন্দা সংস্থা। 

অন্য দিকে, সোনা পাচার মামলায় মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের প্রাক্তন ব্যক্তিগত সচিব এম শিবশংকরকে জেরা করার জন্য এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টোরেট ডেকে পাঠালে বুধবার তিনি অগ্রিম জামিনের আবেদন আদালতে জমা দিয়েছেন। 

বন্ধ করুন