বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ধস নামবেই,সেনা সামলে নেবে, চারধাম প্রকল্পে রাস্তা চওড়া করা নিয়ে আদালতে কেন্দ্র
চারধাম প্রকল্পে রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ নিয়ে আদালতে জানাল কেন্দ্র  (HT Photo) (HT_PRINT)
চারধাম প্রকল্পে রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ নিয়ে আদালতে জানাল কেন্দ্র  (HT Photo) (HT_PRINT)

ধস নামবেই,সেনা সামলে নেবে, চারধাম প্রকল্পে রাস্তা চওড়া করা নিয়ে আদালতে কেন্দ্র

  • বেনুগোপালন জানিয়েছেন, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ধস একটা বাস্তব ঘটনা। আমাদের এটার মধ্যেই বাস করতে হয়। এখন প্রশ্ন হচ্ছে আর্মি কি এই কাজ থেকে হাত তুলে নিয়ে বলবে যে ওখানে ধস হয়।

ধস নামবে এই ঝুঁকির আতঙ্কে সীমান্তে রাস্তা তৈরি করা থেকে সেনা পিছিয়ে আসবে এটা হবে না। চার ধাম পরিযোজনায় ১০ মিটার চওড়া রাস্তা হবে। এমনকী যে রাস্তার কিছুটা ভারত চিন সীমান্তের দিকেও গিয়েছে। বৃহস্পতিবার একথা সুপ্রিম কোর্টে জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রক ও কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রকের তরফে দুটি আবেদনপত্র জমা পড়েছিল আদালতের কাছে। মূলত চারধাম প্রজেক্টের রাস্তাকে ৫.৫ মিটার থেকে বৃদ্ধি করার ব্যাপারে আবেদন করা হয়েছিল। কারণ সুপ্রিম কোর্টের আগের নির্দেশ ছিল ৫.৫ মিটারের বেশি চওড়া রাস্তা করা যাবে না।

এদিকে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেনুগোপালন জানিয়ে দেন, কেন কেন্দ্র ধস কবলিত এলাকাতেও রাস্তা চওড়া করতে চাইছে। বেনুগোপালন জানিয়েছেন, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ধস একটা বাস্তব ঘটনা। আমাদের এটার মধ্যেই বাস করতে হয়। এখন প্রশ্ন হচ্ছে আর্মি কি এই কাজ থেকে হাত তুলে নিয়ে বলবে যে ওখানে ধস হয়। আমরা পাহাড়ি এলাকায় রাস্তা উন্নয়নের কাজ করতে পারব না। পৃথিবীর কোনও সেনাই এটা বলবে না। আমাদের যদি এটার মধ্যেই বাস করতে হয় তবে এক্ষেত্রে সমস্যা মেটাতে সমস্ত প্রযুক্তিকে প্রয়োগ করতে হবে। 

 

সূত্রের খবর, ঋষিকেশ থেকে মানা ২৮১ কিমি রাস্তা, ঋষিকেশ থেকে গঙ্গোত্রী ২৩১ কিমি রাস্তা, টনকপুর থেকে পিথোরাগড় পর্যন্ত ১৬২ কিমি রাস্তা চারধাম প্রকল্পের আওতায় রয়েছে। কেন্দ্র জানিয়েছে জিওলজিকাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার সঙ্গে তারা মউ স্বাক্ষর করেছে। ২০২০ সালে যখন আদালত বলেছিল ৫.৫ মিটারের বেশি চওড়া করা যাবে না তার একসপ্তাহের মধ্যেই এই মউ স্বাক্ষর হয়েছিল। তবে আদালতের পর্যবেক্ষণ, এই মউ স্বাক্ষর হয়েছে ২০২১ সালে জানুয়ারি মাসে। 

 

বন্ধ করুন