তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের মতে, নিষাধাজ্ঞা উঠে গেলে মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করা কঠিনতর হয়ে পড়বে।
তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের মতে, নিষাধাজ্ঞা উঠে গেলে মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করা কঠিনতর হয়ে পড়বে।

লাগাম হারাবে সংক্রমণ, লকডাউন না তুলতে প্রধানমন্ত্রীকে আর্জি জানাবে তেলেঙ্গানা

লকডাউন উঠে যাওয়ার ফলে যে অজস্র মানুষের মৃত্যু হবে, তাঁদের জীবন কোনও ভাবেই ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে না।

লকডাউন তুলে দিলে লাফিয়ে বাড়বে সংক্রমণ। এই কারণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আবেদন জানাবেন বলে ঠিক করেছেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও।

আগামী ১৪ এপ্রিল উঠতে চলেছে দেশজুড়ে আরোপ করা Covid-19 কিন্তু চন্দ্রশেখর রাওয়ের দাবি, ‘বৃহত্তর প্রেক্ষিতে আমরা পরে দেশ ও রাজ্যের অর্থনীতি পুনরুদ্ধার করতে পারব। কিন্তু লকডাউন উঠে যাওয়ার ফলে যে অজস্র মানুষের মৃত্যু হবে, তাঁদের জীবন কোনও ভাবেই ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে না।’

রাওয়ের মতে, নিষাধাজ্ঞা উঠে গেলে মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করা কঠিনতর হয়ে পড়বে। তিনি বলেন, ‘এতদিন ধরে যে বিপুল আর্থিক ক্ষতি অগ্রাহ্য করেও আমরা কষ্ট সহ্য করেছি, তার সবই জলে যাবে যদি পরিস্থিতি আগের মতোই হয়ে যায়।’

তবে এ দিনই আবার মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে ঘোষণা করা হয়েছে, লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। আমেরিকার বস্টন কনসাল্টিং গ্রুপ-এর রিপোর্টের উপরে ভিত্তি করে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আরও ২ সপ্তাহ লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য প্রস্তাব জানানো হবে। তার ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্ত মেনেই নিষেধাজ্ঞা তোলা নিয়ে চূড়ান্ত পদক্ষেপ করবে রাজ্য প্রশাসন।

সোমবারই লকডাউন তুলে দেওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন উত্তর প্রদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব। তিনি জানিয়েছেন, রাজ্যে একজনও করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেলে ১৪ এপ্রিল লকডাউন তুলবে না উত্তর প্রদেশ সরকার।

করোনা সংক্রমণে এখনও পর্যন্ত তেলেঙ্গানায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩৪ জন। তাঁদের মধ্যে ৩৩ জন সুস্থ হয়েছেন, মারা গিয়েছেন ১১ জন।

করনা মোকাবিলায় গত সপ্তাহে রাজ্যের সমস্ত মন্ত্রী, বিধায়ক ও সরকারি কর্মচারীদের বেতন ছাঁটাই করা হবে বলে ঘোষণা করেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও।

বন্ধ করুন