বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > করবিইনের পরে ব্রিটিশ লেবার পার্টির দায়িত্বে কি এই ‘বঙ্গতনয়া’!
লেবার পার্টিতে জেরেমি করবিইনের স্থলাভিষিক্ত হতে পারেন বাঙালি বংশোদ্ভূত লেবার নেত্রী লিসা নন্দী।
লেবার পার্টিতে জেরেমি করবিইনের স্থলাভিষিক্ত হতে পারেন বাঙালি বংশোদ্ভূত লেবার নেত্রী লিসা নন্দী।

করবিইনের পরে ব্রিটিশ লেবার পার্টির দায়িত্বে কি এই ‘বঙ্গতনয়া’!

  • করবিইনের উত্তরসূরি হওয়ার দৌড়ে যে দুই জনের নাম শোনা যাচ্ছে, তার মধ্যে এগিয়ে গ্রেটার ম্যাঞ্চেস্টারের উইগ্যানের সাংসদ বছর চল্লিশের লিসা নন্দী।

নির্বাচনে ভরাডুবির পরে ব্রিটিশ লেবার পার্টিতে জেরেমি করবিইনের স্থলাভিষিক্ত হতে চলেছেন বাঙালি বংশোদ্ভূত নেত্রী লিসা নন্দী।

গত বৃহস্পতিবার ব্রিটেনে নির্বাচনে বিপুল ভোটে পরাজিত হয় করবিইনের নেতৃত্বাধীন লেবার পার্টি। রবিবার দু’টি জনপ্রিয় ব্রিটিশ দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত প্রবন্ধে হারের দায় স্বীকার করেছেন করবিইন এবং তাঁর সহকারী চ্যান্সেলর জন ম্যাকডনেল। একই সঙ্গে দলের নেতৃত্বে পরিবর্তনের কথাও জানিয়েছেন প্রাক্তন লেবার পার্টি প্রধান।

করবিইনের উত্তরসূরি হওয়ার দৌড়ে যে দুই জনের নাম শোনা যাচ্ছে, তার মধ্যে এগিয়ে গ্রেটার ম্যাঞ্চেস্টারের উইগ্যানের লেবার সাংসদ বছর চল্লিশের লিসা নন্দী।

নেতৃত্বের দৌড়ে মেয়ের অংশগ্রহণের কথা স্বীকার করেছেন লিসার বাবা শ্রদ্ধেয় শিক্ষাবিদ দীপক নন্দী। লিসার সঙ্গেই এই দৌড়ে শামিল হয়েছেন স্যালফোর্ড অ্যান্ড এক্লেসের সাংসদ রেবেকা লং-বেইলি (৪০)।

একদা পশ্চিমবঙ্গের শ্রদ্ধেয় শিক্ষাবিদ দীপক নন্দী ১৯৫৬ সালে ব্রিটেনে পাকাপাকি বসবাস শুরু করেন। তাঁর স্ত্রী লুইস নন্দীর বাবা ফ্র্যাঙ্ক বায়ার্স ছিলেন হাউস অফ লর্ডসের লিবারাল সাংসদ।

সম্প্রতি ‘দ্য অবজার্ভার’ পত্রিকায় প্রকাশিত প্রবন্ধে লিসা লিখেছেন, নির্বাচনে ভরাডুবি থেকে সঠিক শিক্ষা পেয়ে থাকলে কনজার্ভেটিভ পার্টির জন্য বড়সড় দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে উঠবে লেবার পার্টি। শুধু তাই নয়, প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ক্ষমতায় থাকার মেয়াদও যে সীমিত, তা জানাতেও কুণ্ঠা বোধ করেননি লেবার সাংসদ।

লেবার পার্টির পরবর্তী প্রধান নির্বাচনের দিনক্ষণ সম্ভবত ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই শেষ করার পরিকল্পনা করেছে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। লিসা নন্দী ও রেবেকা লং-বেইলির পাশাপাশি প্রধান পদের জন্য সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বীর তালিকায় রয়েছেন কের স্টার্মার, এমিলি থর্নবেরি এবং জেস ফিলিপ্স।

বন্ধ করুন