বাড়ি > ঘরে বাইরে > কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে কোন পর্যায়ে কী কী ছাড় মিলবে? দেখুন পুরো তালিকা
অরুণাচলে যাওয়ার জন্য গুয়াহাটি বিমানবন্দরে যাত্রীদের চেক-ইন (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
অরুণাচলে যাওয়ার জন্য গুয়াহাটি বিমানবন্দরে যাত্রীদের চেক-ইন (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে কোন পর্যায়ে কী কী ছাড় মিলবে? দেখুন পুরো তালিকা

  • একনজরে দেখে নিন কোন ধাপে কোন কোন কাজ বা গতিবিধিতে বিধিনিষেধ শিথিল হবে

প্রত্যাশিতই ছিল। সেইমতো শুধুমাত্র কনটেনমেন্ট জোনেই কঠোর বিধিনিষেধ বজায় রাখা হল। তাছাড়া বাকি এলাকাগুলিতে ধাপে ধাপে বিভিন্ন গতিবিধিতে বিধিনিষেধ শিথিল করার সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র।

শনিবার সন্ধ্যায় নয়া নির্দেশিকা জারি করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, যে এলাকাগুলি কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে রয়েছে, সেখানে তিনটি পর্যায়ে বিভিন্ন গতিবিধিতে বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করা হবে। একনজরে দেখে নিন কোন ধাপে কোন কোন কাজ বা গতিবিধিতে বিধিনিষেধ শিথিল হবে -

প্রথম পর্যায় : 

আগামী ৮ জুন থেকে এই গতিবিধিগুলিতে ছাড়ে দেওয়া হবে।

১) ধর্মীয় স্থান বা মানুষের প্রার্থনার জায়গা।

২) হোটেল, রেস্তোরাঁ এবং অন্যান্য পরিষেবামূলক কাজ বা হসপিট্যালি সার্ভিস।

৩) শপিং মল।

দ্বিতীয় পর্যায় : 

রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে স্কুল, কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কোচিং সেন্টার ইত্যাদি খোলা হবে। তা নিয়ে অভিভাবক ও বাকি কর্তৃপক্ষের  সঙ্গেও আলোচনা করতে পারে রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের প্রশাসন। সেই মতামতের উপর ভিত্তি করে আগামী জুলাই মাসে স্কুল, কলেজ-সহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হবে কিনা, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তৃতীয় পর্যায় : 

পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে এই গতিবিধি ও কাজগুলি কবে থেকে শুরু করা হবে, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

১)  আন্তর্জাতিক যাত্রিবাহী উড়ান পরিষেবা। শুধু বিদেশ মন্ত্রকের তরফে যে পরিষেবায় ছাড় দেওয়া হয়েছে, সেগুলি ছাড়া।

২) মেট্রো রেল।

৩) সিনেমা হল, জিম, সুইমিং পুল, বিনোদন পার্ক, থিয়েটার, পানশালা, অডিটোরিয়াম, জমায়েত কক্ষ এবং সেই জাতীয় জায়গা।

৪) সামাজিক বা রাজনৈতিক বা খেলাধূলা বা বিনোদন বা শিক্ষামূলক বা সাংস্কৃতিক বা ধর্মীয় অনুষ্ঠান-সহ অন্যান্য বড় জমায়েত।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে এবং সামাজিক দূরত্বের বিধি নিশ্চিত করতে বিভিন্ন কেন্দ্রীয় মন্ত্রক, দফতর এবং অন্যান্য কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজগুলির ক্ষেত্রে স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) জারি করবে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক।

বন্ধ করুন