বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > দাড়ি কাটাতে মোদীকে ১০০ টাকা পাঠালেন মহারাষ্ট্রের এক 'চাওয়ালা'!
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

দাড়ি কাটাতে মোদীকে ১০০ টাকা পাঠালেন মহারাষ্ট্রের এক 'চাওয়ালা'!

  • কোভিডকালে ক্রমেই বেড়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দাড়ি। যা নিয়ে কম তোপ দাগেননি বিরোধীরা।

কোভিডকালে ক্রমেই বেড়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দাড়ি। যা নিয়ে কম তোপ দাগেননি বিরোধীরা। তবে দাড়ি কাটাননি মোদী। এবার প্রধানমন্ত্রীকে দাড়ি কাটানোর জন্য ১০০ টাকার মানিঅর্ডার করলেন মহারাষ্ট্রের এক চা বিক্রেতা, নাম অনিল মোরে। বারামতীর ইন্দরপুর রোডে অবস্থিত একটি হাসপাতালের সামনে চা বিক্রি করেন অনিল। প্রধানমন্ত্রী মোদীকে সেই ব্যক্তির আরও আবেদন, দেশের উন্নয়নের দিকে নজর দিন।

করোনা পরিস্থিতিতে গতবছর লকডাউন জারি হয়েছিল দেশজুড়ে। সেই সময় রাহুল গান্ধী প্রধানমন্ত্রী মোদীকে তোপ দেগে বলেছিলেন, দেশজুড়ে সব বন্ধ, তাহলে আপনি দাড়ি কীভাবে কাটছেন? এরপর থেকে আর দাড়ি কাটাননি প্রধানমন্ত্রী মোদী। এরপর বাংলার নির্বাচনে রবিন্দ্রনাথ ঠাকুরের আবেগকে টেনে আনতে হোক বা অন্য কোনও কারণে, ২০২১ সালেও বেড়ে চলেছে মোদীর দাড়ি। তবে ধস নেমেছে ভারতীয় অর্থনীতিতে। আর তা নিয়ে কটাক্ষের অন্ত নেই।

এই আবহে সেই চা বিক্রেতা অনিল মোদীকে চিঠি লেখেন। তাতে লেখা, 'প্রধানমন্ত্রী, আপনি দাড়ি বাড়িয়ে চলেছেন। তবে যদি সত্যি কিছু বাড়াতে হয়, তাহলে ভারতীয়দের কর্মসংস্থান বাড়ান। টিকাকরণের গতি বাড়ান। স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটান। লকডাউনে মানুষ যে দুর্দশার সম্মুখীন হয়েছে, তা থেকে তাদের তুলে আনুন। এই সময় সাধারণ মানুষের দুর্দশা দূর করুন।'

এরপর অনিল আরও লেখেন, 'আমি ব্যক্তিগত ভাবে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে খুবই শ্রদ্ধা করি। আমি তাঁকে কষ্ট দিতে চাই না। আমি আজ আমার সঞ্চয় করা অর্থের থেকে ১০০ টাকা পাঠাচ্ছি আপনাকে। আপনি দয়া করে দাড়িটা কেটে ফেলুন। অতিমারী আবহে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই এই উপায় বেছে নিলাম আমি।' অনিলের আবেদন, করোনায় মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হোক। তাছাড়া লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্তদের ৩০ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হোক।

বন্ধ করুন