বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘কংগ্রেস নেতারা ভারতের সম্রাট নয়’, জোট দরজা খোলা রেখে চাঁচাছোলা আক্রমণ মহুয়ার
কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। ফাইল ছবি
কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। ফাইল ছবি

‘কংগ্রেস নেতারা ভারতের সম্রাট নয়’, জোট দরজা খোলা রেখে চাঁচাছোলা আক্রমণ মহুয়ার

  • কংগ্রেস হাইকমান্ডকে বিদ্ধ করে মহুয়ার মন্তব্য, ‘কংগ্রেসকে বুঝতে হবে যে তাদের নেতারা ভারতের সম্রাট নয়।’

শিয়রে গোয়ার নির্বাচন। সৈকত পাড়ে বিজেপিকে ঠেকাতে ভোট ময়দানে কংগ্রেস ও তৃণমূল হাত মেলাবে কিনা, তা নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই জল্পনা তুঙ্গে। এরই মধ্যে দুই দলই জোট সম্ভাবনা উস্কে দিয়ে একে অপরকে খোঁচা মারতে ছাড়েনি। এই আবহে এবার গোয়ায় তৃণমূলের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা মহুয়া মৈত্র বেনজির আক্রমণ শানালেন কংগ্রেসকে। শ্লেষ মেশানো মন্তব্যে কংগ্রেস হাইকমান্ডকে বিদ্ধ করে মহুয়ার বক্তব, ‘কংগ্রেসকে বুঝতে হবে যে তাদের নেতারা ভারতের সম্রাট নয়।’

উল্লেখ্য, তৃণমূলকে খোঁচা দিয়ে এর আগে কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম বলেছিলেন যে গোয়ায় প্রধান দুই প্রতিপক্ষ হল কংগ্রেস ও বিজেপি। চিদম্বরমের অভিযোগ, তৃণমূল ও আম আদমি পার্টির মতো দল গোয়ায় প্রার্থী দিয়ে বিজেপি বিরোধী ভোট বিভক্ত করছে। এরই জবাব দিতে গিয়ে মহুয়া বলেন, ‘বর্তমানে গোয়ায় বিজেপি বিরোধী শক্তি বলতে কংগ্রেস, তৃণমূল, আম আদমি পার্টি। কোনও একটি নির্দিষ্ট দল এটা দাবি করতে পারে না যে একমাত্র তারাই এখানে উপস্থিত আছে।’

মহুয়া আরও বলেন, ‘মানুষদের বুঝতে হবে যে যদি কংগ্রেস তাদের কাজ করে থাকত তাহলে তৃণমূল কংগ্রেসকে এখানে আসতে হত না। আমরা এখানে এসেছি কারণ কংগ্রেস তাদের কাজ ঠিক ভাবে করতে পারেনি। কংগ্রেস এখন এমন এখ প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়েছে যারা একা বিজেপিকে হারাতে অক্ষম।’ এদিকে এই আক্রমণের মাঝেও জোট রাস্তা খোলা রেখেছেন মহুয়া। তিনি বলেন, ‘আমরা তাদের আলোচনার টেবিলে বসতে বলেছি। আমরা একসঙ্গে বসে দেখতে পারি যে বিজেপিকে কীভাবে হারানো যায়। তৃণমূল বলছে যে সবাই যদি একসঙ্গে আসে তাহলে আমরা বিজেপিকে হারাতে পারব।’

তিনি বলেন, ‘চিদম্বরম ও কংগ্রেসকে বুঝতে হবে যে বিজেপিকে হারানোর সময় এসেছে এবং তাদের মাটিতে পা ফেলা উচিত। তাদের বুঝতে হবে যে বিজেপিকে একা হারানো তাদের পক্ষে আর সম্ভব নয়।’ এদিকে দল ভাঙানো প্রসঙ্গে কংগ্রেসকে পাল্টা তোপ দেগে মহুয়ার বক্তব্য, ‘কংগ্রেস প্রাক্তন বিজেপি মন্ত্রী মাইকেল লোবো সহ একাধিক বিজেপি বিধায়ককে দলে নিয়েছে। তাই তাদের তো এই বিষয়ে কথা বলা উচিতই নয়।’

বন্ধ করুন