বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > গোয়ায় জিতবে তৃণমূল, মমতার এককালের 'প্রতিদ্বন্দ্বী' হয়ে উঠলেন বড় সমর্থক
নাফিসা।
নাফিসা।

গোয়ায় জিতবে তৃণমূল, মমতার এককালের 'প্রতিদ্বন্দ্বী' হয়ে উঠলেন বড় সমর্থক

২০০৪ সালে দক্ষিণ কলকাতা কেন্দ্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন নাফিসা।

‌তৃণমূলের গোয়ায় লড়াইয়ের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একসময়ের প্রতিদ্বন্দ্বী নাফিসা আলি। তাঁর মতে, মোদী বিরোধী আন্দোলনের একমাত্র মুখ মমতাই। উল্লেখ্য, নাফিসা একটা সময়ে কংগ্রেসের প্রার্থী হিসেবে মমতার বিরুদ্ধে লড়েছিলেন।

গত শনিবার তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়ানের সঙ্গে দেখা করেছিলেন নাফিসা। তাঁদের মধ্যে এই সাক্ষাৎ নেহাত সৌজন্যমূলক বলা হলেও নাফিসার বক্তব্য থেকেই স্পষ্ট, তৃণমূল গোয়ায় লড়ার সিদ্ধান্তে স্বভাবতই খুশি তিনি। তাঁর কথায়, ‘‌আমি খুশি যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল গোয়ায় ভোটে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গোয়ার উন্নয়নে বিশেষ করে জোর দেওয়া দরকার। এটা এখানকার মানুষের বিশেষ অধিকার।’‌

নাফিসার সঙ্গে ডেরেক ও ব্রায়ানের সাক্ষাতের ছবি ফেসবুকে পোস্ট হয়েছে। এই ফেসবুক পোস্টের পরই রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে, তাহলে কি নাফিসা তৃণমূলে আসছেন? তৃণমূলে যোগ দেওয়া প্রসঙ্গে নাফিসা বা ডেরেক কারও তরফেই কোনও বক্তব্য স্পষ্ট আসেনি। এই প্রসঙ্গে তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ জানিয়েছেন, ‘গোয়ায় বিভিন্ন সাংস্কৃতিক মানুষদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে তৃণমূল। এখন দেখা যাক কারা আসে। তবে চমক রয়েছে।’ উল্লেখ্য, আগামী বছর গোয়ায় নির্বাচনে লড়ছে তৃণমূল। ওই রাজ্যে দায়িত্বে রয়েছেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়ান। ইতিমধ্যে গোয়ায় তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন সেই রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি গোয়ায় রাজনৈতিক রণকৌশল সাজাতে টিম পিকে–কেও কাজে লাগাচ্ছে তৃণমূল।

নাফিসার আরও একটি বড় পরিচয় হল, নাফিসা গায়ক লাকি আলির বন্ধু। পশ্চিমবঙ্গে যে তৃণমূল সরকার উন্নয়নের কাজ করছে, সে বিষয়ে সহমত পোষণ করেছেন নাফিসা ও লাকি। উল্লেখ্য, নাফিসার সঙ্গে কলকাতার যোগাযোগ অনেকদিনের। কলকাতায় তাঁর জন্ম ও বেড়ে ওঠা। লা মার্টিনিয়ার স্কুলে তাঁর পড়াশোনা। অনেকদিন কলকাতায় না এলেও রাজনৈতিক জগতের খোঁজখবর এখনও রাখেন তিনি। উল্লেখ্য, ২০০৪ সালে দক্ষিণ কলকাতা কেন্দ্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন নাফিসা। হারের পর মমতাকে এক সময়ে কংগ্রেসে ফেরার আবেদনও জানিয়েছিলেন তিনি।

বন্ধ করুন