বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Mamata writes to PM Modi: ‘সংসদে আলোচনা হোক,’ নতুন ফৌজদারি আইন কার্যকর না করতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি মমতার

Mamata writes to PM Modi: ‘সংসদে আলোচনা হোক,’ নতুন ফৌজদারি আইন কার্যকর না করতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি মমতার

নতুন ফৌজদারি আইন কার্যকর না করতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি মমতার

Mamata writes to PM Modi নতুন আইনগুলি যথাক্রমে ভারতীয় দণ্ডবিধি, ফৌজদারি কার্যবিধি এবং ১৮৭২ সালের ভারতীয় প্রমাণ আইনকে প্রতিস্থাপন করতে চলেছে।

নতুন তিনটি অপরাধ আইন এখনই কার্যকর না করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে অনুরোধ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই নতুন আইনগুলি ১ জুলাই থেকে কার্যকর হওয়ার কথা। একটি চিঠিতে, মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আইনগুলি কার্যকর করার সময়সীমা পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। পিছিয়ে দিলে পার্লামেন্টে আইনগুলির পুনর্মূল্যায়নের সুযোগ পাওয়া যাবে চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন।

নতুন আইনগুলি হল ভারতীয় ন্যায় সংহিতা, ভারতীয় নাগরিক সুরক্ষা সংহিতা এবং ভারতীয় সাক্ষ্য আইন। এই আইনগুলি ঔপনিবেশিক আমলের ভারতীয় দণ্ডবিধি, ফৌজদারি কার্যবিধি এবং ১৮৭২ সালের ভারতীয় সাক্ষ্য আইনকে প্রতিস্থাপন করবেয

নতুন আইনগুলির লক্ষ্য হল দেশের নাগরিকদের দ্রুত বিচার প্রদান করা এবং বিচারব্যবস্থা ও আদালত পরিচালন ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করা।

আরও পড়ুন। দুর্নীতির ঘুঘুর বাসা সরকারি কর্মীদের মধ্যে, বৈঠকে চরম ক্ষুব্ধ হয়ে বিস্ফোরক মমতা

চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উল্লেখ করেছেন যে, এই আইনের কার্যকর করার তারিখ পিছিয়ে দেওয়ার ফলে আইনগুলির সম্ভাব্য প্রভাব ও কার্যকারিতা সম্পর্কে সংসদে নতুন করে আলোচনা করা সম্ভব হবে। তিনি আরও বলেন, একটি গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় আইন প্রণয়নের প্রক্রিয়া স্বচ্ছ ও ব্যাপক আলোচনার মাধ্যমে হওয়া উচিত।

বেশ কয়েকজন বিশেষজ্ঞ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকের মতে, এই আইনের অধীনে অপরাধ তদন্ত ও বিচার প্রক্রিয়া আরও কার্যকর ও দ্রুত হবে। তবে, এর পাশাপাশি এও বলা হচ্ছে যে, এই ধরনের গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তনের আগে পার্লামেন্টে পুঙ্খানুপুঙ্খ পর্যালোচনা করা প্রয়োজন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে পাঠানো চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, নতুন আইনের কার্যকর হওয়ার আগে তা নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর মতে, এই আলোচনা শুধু আইনগুলির কার্যকারিতা বাড়াবে না, বরং তা প্রয়োগের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও গ্রহণযোগ্যতাও বাড়াবে।

মমতার বক্তব্য, ‘ওই তিন আইন স্বৈরাচারী মানসিকতা থেকে পাশ করানো হয়েছিল। গণতন্ত্রের কালো দিনে আইনটি তৈরি হয়েছিল। আমার মনে হয় এবার এই আইনটি পুনরায় খতিয়ে দেখার সময় এসেছে।’ তাঁর দাবি, ‘ওই তিন আইন নতুন করে সংসদে পেশ করতে হবে। ওই আইনগুলি সেসময় দ্রুততার সঙ্গে পাশ করানো হয়েছিল। এবার ওই আইনের অনেক ধারাতেই আপত্তি জানানো হবে। সেটা হলে, নতুন জনপ্রতিনিধিরাও আইনগুলি খতিয়ে দেখার সুযোগ পাবেন।’

এই গুরুত্বপূর্ণ চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে এখন সকলের নজর প্রধানমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়ার দিকে। নতুন আইনগুলির ভবিষ্যৎ ও তাদের কার্যকর করার সময়সীমা নির্ভর করবে কেন্দ্রীয় সরকারের পরবর্তী সিদ্ধান্তের উপর।

 

 

 

This story has been published from a wire agency feed without modifications to the text. Only the headline has been changed.

ঘরে বাইরে খবর

Latest News

গুরু পূর্ণিমা ২০২৪ র তিথি কখন থেকে পড়বে? সর্বার্থ সিদ্ধিযোগের শুভ সময় দেখে নিন দুর্ঘটনায় হেল্পলাইন নম্বর চালু রেলের, ট্রেনটির যাওয়ার কথা ছিল বাংলার ওপর দিয়েই অনেকের হাতেই থাকে ভ্যাকসিনের গোল ছাপ! কীসের টিকা এটি? এখন আর দেখা যায় না কেন শুভেন্দুর বিরুদ্ধে সব মামলার কেস ডায়েরি তলব কলকাতা হাইকোর্টের, পুলিশ কত সময় পেল? নিট প্রশ্নফাঁস মামলায় NTA-কে বড় নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টে, পরবর্তী শুনানি কবে? বিশেষ বুট পরে ইন্টার মায়ামির ম্যাচে লিওনেল মেসি! চোট নিয়েই দলের জয় দেখলেন LM10 বাজেটে সুযোগ রয়েছে ‘আসল ৪০০ পার’ অর্জনের- কী নিয়ে মোদীদের খোঁচা কংগ্রেসের? মাথাহীন দানবের সঙ্গে লড়াইয়ে রাজকুমার, শ্রদ্ধা কি সত্যিই পিশাচিনী? আসছে স্ত্রী ২ ফের দুর্ঘটনার কবলে রেল, অসমগামী এক্সপ্রেস ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে মৃত ৪, আহত ২৫ জাতীয় দলের কোচের দৌড়ে AIFF-এর শর্টলিস্টে মানোলো, হাবাসও, ৬ জনকে পাঠানো হল ই-মেল

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.