বাড়ি > ঘরে বাইরে > নাচতে নারাজ, শিল্পীর মুখে গুলি চালিয়ে ফেরার মদ্যপ
মঞ্চে বসা হিনা (লাল পোশাক) নাচতে অস্বীকার করায় তাঁকে গুলি করে অজিত সিং (কালো কোট পরা)।
মঞ্চে বসা হিনা (লাল পোশাক) নাচতে অস্বীকার করায় তাঁকে গুলি করে অজিত সিং (কালো কোট পরা)।

নাচতে নারাজ, শিল্পীর মুখে গুলি চালিয়ে ফেরার মদ্যপ

  • মদে চুর হয়ে অজিত সিং বার বার তাঁকে নাচার জন্য ফরমায়েশ দিতে থাকলেও তা মানেননি হিনা। এরপরই আচমকা বন্দুক বের করে প্রথমে ভয় দেখাতে শূন্যে গুলি চালায় অজিত এবং তারপর মঞ্চে উঠে পড়ে হিনার মুখ নিশানা করে গুলি চালায়।

ফরমায়েশ পেয়েও নাচতে অস্বীকার করায় নৃত্যশিল্পীকে মঞ্চের ওপরে গুলি করল এক দর্শক। উত্তরপ্রদেশের চিত্রকূট জেলার ঘটনায় গুরুতর জখম হওয়ার পরে আপাতত হাসপাতালে চিকিত্সারত হতভাগ্য শিল্পী। এখনও নিখোঁজ বন্দুকবাজ।

মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে নাচার জন্য একদল শিল্পীকে ভাড়া করেছিলেন টিকরা গ্রামের প্রধান সুধীর সিং। গত ৩০ নভেম্বর সন্ধ্যায় সেই অনুষ্ঠানে গানের তালে মঞ্চের ওপর নাচছিলেন একাধিক নৃত্যশিল্পী। সেই সময় হিনা নামে এক নৃত্যশিল্পীকে তাঁর পছন্দের গানের সঙ্গে নাচার ফরমায়েশ দিতে শুরু করে আদতে কৌশাম্বির বাসিন্দা অজিত সিং। সারা সন্ধ্যা তার অনুরোধে নাচলেও একসময় ক্লান্ত হয়ে মঞ্চের পিছন দিকে বসে পড়েন বছর কুড়ির হিনা।

মদে চুর হয়ে না-ছোড় অজিত সিং বার বার তাঁকে নাচার জন্য ফরমায়েশ দিতে থাকলেও তা মানেননি হিনা। এরপরই আচমকা বন্দুক বের করে প্রথমে ভয় দেখাতে শূন্যে গুলি চালায় অজিত এবং তারপর মঞ্চে উঠে পড়ে হিনার মুখ নিশানা করে গুলি চালায়। একই সঙ্গে মুকেশ ও কমলেশ নামে দুই পুরুষ শিল্পীকেও সে গুলি করে।

পুলিশ জানিয়েছে, মুকেশের মাথায় এবং কমলেশের হাতে গুলি বেঁধে। তাঁদের আঘাত গুরুতর হলেও চিকিত্সায় তাঁরা সাড়া দিচ্ছেন। অন্য দিকে, হিনাকে এলাহাবাদের এক হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে. তাঁর মুখে অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। আপাতত সেই হাসপাতালেই তিনি শয্যাশায়ী।

ঘটনার পর থেকেই গ্রাম থেকে পালায় অজিত সিং। গ্রামপ্রধান সুধীর সিং তাকে আড়াল করতে গিয়ে বলেন, উত্সবের অংশ হিসেবে শূন্যে গুলি চালালে তা নিশানাভ্রষ্ট হয়েই শিল্পীদের আহত করেছে।

সেই তত্ত্ব অবশ্য প্রথম থেকেই মানতে রাজি হয়নি পুলিশ। ঘটনাস্থলে উপস্থিত প্রত্যক্ষদর্শীর মোবাইল ফোন ক্যামেরায় তোলা ভিডিয়োয় অজিতের কুকীর্তি ফাঁস হওয়ার পরে তার সন্ধানে তল্লাশি অভিযানে নেমেছে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে অজিতের বাবা ফুল সিং এবং গ্রামপ্রধান সুধীর সিংকে।

বন্ধ করুন