বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > স্বাধীনতার যুক্তিতে মাস্ক না পরার জন্য আন্দোলন ব্যক্তির, মৃত্যু হল করোনায়
স্বাধীনতার যুক্তিতে মাস্ক না পরার জন্য আন্দোলন ব্যক্তির, মৃত্যু হল করোনায়। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
স্বাধীনতার যুক্তিতে মাস্ক না পরার জন্য আন্দোলন ব্যক্তির, মৃত্যু হল করোনায়। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

স্বাধীনতার যুক্তিতে মাস্ক না পরার জন্য আন্দোলন ব্যক্তির, মৃত্যু হল করোনায়

  • ব্যক্তিগত স্বাধীনতার পরিপন্থী। এমনই যুক্তি খাড়া করে করোনাভাইরাসের দাপটের সময় মাস্ক-বিরোধী আন্দোলন শুরু করেছিলেন।

ব্যক্তিগত স্বাধীনতার পরিপন্থী। এমনই যুক্তি খাড়া করে করোনাভাইরাসের দাপটের সময় মাস্ক-বিরোধী আন্দোলন শুরু করেছিলেন। একাধিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, করোনায় আক্রান্ত হয়ে সেই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের। 

একাধিক সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, গত শনিবার কালেব ওয়ালেস নামে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। ওই মৃত ব্যক্তির স্ত্রী জেসিকা একটি পেজে নিয়মিত ওয়ালেসের শারীরিক অবস্থার বিষয়ে পোস্ট করতেন। ৩০ বছরের কালেব তিন সন্তানের বাবা ছিলেন। তাঁর স্ত্রী আপাতত অন্ত্বঃসত্ত্বা। জেসিকা বলেন, 'কালেব শান্তির সঙ্গে ঘুমিয়ে গিয়েছে। ও চিরকাল আমাদের হৃদয়ে থাকবে।'

ব্যক্তিগত স্বাধীনতার পরিপন্থী হওয়ার যুক্তি দেখিয়ে গত বছরের ৪ জুলাই সান অ্যাঞ্জেলোতে স্বাধীনতা মিছিলের আয়োজন করেছিলেন কালেব। সেই মিছিলের অংশগ্রহণকারীরা বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরা, ব্যবসা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন। সরকার এবং সংবাদমাধ্যমের একাংশের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন কালেব। তৈরি করেছিলেন 'সান অ্যাঞ্জেলো ফ্রিডম ডিফেন্ডারস' নামে একটি গ্রুপ। করোনা সংক্রান্ত যাবতীয় বিধিনিষেধ প্রত্যাহারের জন্য চলতি বছরের এপ্রিলে জেলা কর্তৃপক্ষকেও চিঠি লিখেছিলেন।

কালেবের স্ত্রী জেসিকা জানান, ২৬ জুলাই করোনা সংক্রান্ত উপসর্গ দেখা গিয়েছিল। কিন্তু করোনা পরীক্ষা করতে বা হাসপাতালে যেতে চাইতেন না কেলেব। পরিবর্তে ভিটামিন সি, জিঙ্ক, অ্যাসিপিরিনের মতো হাইডোজের ওষুধ নিয়েছিলেন। যে ওষুধগুলি করোনাভাইরাস আক্রান্তদের না দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন মার্কিন বিশেষজ্ঞরা। তার জেরে শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়েছিল। ৩০ জুলাই তাঁকে ভরতি করা হয়েছিল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে। ৮ অগস্ট থেকে কেলেবের সংজ্ঞা ছিল না এবং ভেন্টিলেটরে ছিলেন।

বন্ধ করুন