বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Manipur Naked Women Parade FIR: নগ্ন অবস্থায় 'প্যারেড' করানো হয় মহিলাদের, চলে গণধর্ষণ, বিভীষিকার উল্লেখ FIR-এ

Manipur Naked Women Parade FIR: নগ্ন অবস্থায় 'প্যারেড' করানো হয় মহিলাদের, চলে গণধর্ষণ, বিভীষিকার উল্লেখ FIR-এ

মণিপুরে শান্তি ফেরাতে মহিলাদের প্রতিবাদ (AFP)

Manipur Violence: সম্প্রতি এক ভাইরাল ভিডিয়োতে দেখা যায়, দুই মণিপুরি মহিলাকে নগ্ন করে রাস্তায় হাঁটতে বাধ্য করছে একদল লোক। অভিযোগ, সেই মহিলাদের গণধর্ষণও করা হয়। এই ঘটনার বিবরণ সামনে এসেছে পুলিশি এফআইআর থেকে। ঘটনাটি তিন মাস আগের। তবে এর বিভীষিকা এখন সবাইকে হতবাক করে তুলেছে।  

জাতিগত হিংসায় পুড়ে ছাই হচ্ছে মণিপুর। চরম অশান্তি থামার কোনও নামই নেই। হিংসার আগুন থেকে রেহাই পাচ্ছে না শিশু থেকে মহিলারাও। এই আবহে এবার মণিপুরের এক বিভীষিকাময় ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, দু'জন মহিলা একেবারে নগ্ন অবস্থায় রাস্তা দিয়ে হাঁটছেন। অভিযোগ, ওই দুই মহিলাকে মাঠের মধ্যে গণধর্ষণও করা হয়েছে। ইম্ফল থেকে প্রায় ৩৫ কিমি দূরে কাংপোকপি জেলায় ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশের এফআইআর অনুযায়ী, গত ৪ মে ঘটনাটি ঘটেছিল। এদিকে পুলিশের এফআইআর অনুযায়ী, সেই ঘটনায় নির্যাতিতা মহিলাদের পরিবারের দুই সদস্যকেও খুন করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, গতকাল এই ঘটনার ভিডিয়োটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার তীব্র নিন্দা জানায় 'ইন্ডিজেনাস ট্রাইবাল লিডার ফোরাম'। জাতীয় মহিলা কমিশন এবং জাতীয় তফসিলি উপজাতি কমিশনের নজরেও এসেছে ভিডিয়োটি। এদিকে এফআইআরে বলা হয়েছে, ৪ মে এক কুকি পরিবারের ৫ সদস্য আতঙ্কে বনে লুকিয়ে পড়েছিলেন। পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। কিন্তু পুলিশের হাত থেকে তাদের ছিনিয়ে নেওয়া হয়। এরপর ৫৬ বছর বয়সি এক ব্যক্তিকে খুন করা হয়। তারপর তিনজন নারীকে নগ্ন করিয়ে হাঁটানো হয়। ২১ বছর বয়সি এক মহিলাকে গণধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। পরে তিন মহিলা কোনওরকমে পালিয়ে যান। ২১ জুন অভিযোগ দায়ের করা হয় পুলিশে।

উল্লেখ্য, গত ৩ মে থেকে জাতিগত হিংসার সাক্ষী মণিপুর। মাঝে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত ছিল। তবে পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি অবস্থা। এখনও পর্যন্ত কয়েক হাজার জনকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। চূড়াচাঁদপুর, মোরে, কাকচিং এবং কাংপোকপি জেলা থেকে অধিকাংশ মানুষকে সরানো হয়েছে। এরই মধ্যে হিংসায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। অভিযোগ উঠেছে কুকি ‘জঙ্গিরা’ অটোমেটিক রাইফেল নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই আবহে কুকি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে সেই রাজ্যে।

প্রসঙ্গত, ইম্ফল উপত্যকায় সংখ্যাগরিষ্ঠ হল মৈতৈ জনজাতি। তবে তারা সম্প্রতি দাবি তুলেছে যে তাদের তফসিলি উপজাতির তকমা দিতে হবে। তাদের এই দাবির বিরোধ জানিয়েছে স্থানীয় কুকি-জো আদিবাসীরা। এই আবহে গত এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে মণিপুরের অল ট্রাইবাল স্টুডেন্ট ইউনিয়ন একটি মিছিলের আয়োজন করেছিল। সেই মিছিল ঘিরেই হিংসা ছড়িয়ে পড়ে চূড়াচাঁদপুর জেলায়। এদিকে তফশিলি উপজাতির ইস্যুর পাশাপাশি সংরক্ষিত জমি এবং সার্ভে নিয়েও উত্তাপ ছড়িয়েছে। এই আবহে গত এপ্রিল মাসে এই চূড়াচাঁদপুর জেলাতেই মুখ্যমন্ত্রী বীরেন সিংয়ের সভাস্থলে আগুন লাগিয়ে দিয়েছিল ইন্ডিজেনাস ট্রাইবাল লিডারস ফোরামের সদস্যরা। এদিকে এই জেলা থেকে আদিবাসী বনাম মৈতৈদের এই সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে অন্যান্য জেলাতেও। আর এখনও পর্যন্ত সেই হিংসা প্রাণ হারিয়েছেন শতাধিক মানুষ।

বন্ধ করুন