বাড়ি > ঘরে বাইরে > রাজ্য সভা নির্বাচনে ভোট দিয়ে সতীর্থদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠালেন বিজেপি বিধায়ক
রাজ্য সভা নির্বাচনে ভোট দেওয়ার পরে করোনা পরীক্ষা করাতে ভোপালের জে পি হাসপাতালে হাজির হলেন বিজেপি বিধায়করা। ছবি: পিটিআই। (PTI)
রাজ্য সভা নির্বাচনে ভোট দেওয়ার পরে করোনা পরীক্ষা করাতে ভোপালের জে পি হাসপাতালে হাজির হলেন বিজেপি বিধায়করা। ছবি: পিটিআই। (PTI)

রাজ্য সভা নির্বাচনে ভোট দিয়ে সতীর্থদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠালেন বিজেপি বিধায়ক

  • সতীর্থ বিধায়কদের বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল মধ্য প্রদেশের করোনা পজিটিভ বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে।

সংক্রমিত হয়েও রাজ্য সভা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে এসে সতীর্থ বিধায়কদের বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল মধ্য প্রদেশের বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে। ঘটনার জেরে রাজ্য সচিবালয়ের পরামর্শে আপাতত হোম কোয়ারেন্টাইনে রাজ্যের একাধিক বিধায়ক।

গত শুক্রবার রাজ্য সভা নির্বাচনে ভোট দিতে মধ্য প্রদেশ বিধানসভায় উপস্থিত হন ২০৬ জন বিধায়ক। এঁদের মধ্যে ছিলেন Covid-19 পজিটিভ এক বিজেপি বিধায়ক, যিনি পিপিই কিট পরে সস্ত্রীক হাজির হয়েছিলেন। 

জানা গিয়েছে, শুক্রবার দুপুর ৩.৩০ নাগাদ ফের করোনা পরীক্ষা করতে যান বিধায়ক দম্পতি। রাতে রিপোর্ট পাওয়া গেলে তাঁদের দুজনকেই করোনা পজিটিভ প্রমাণিত হন। এর জেরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে মধ্য প্রদেশের বিধায়ক মহলে।

কংগ্রেস বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পি সি শর্মা জানান, ‘সংক্রমিত বিধায়কের কাছাকাছি ছিলেন মূলত বিজেপি বিধায়করাই। কিন্তু আমরাও এবার শঙ্কিত হয়ে পড়েছি। চিকিৎসকের পরামর্শ নিচ্ছি।’ 

রাজ্যের প্রধান স্বাস্থ্য সচিব ফইজ আহমেদ কিদওয়াইয়ের দাবি, ‘বিধায়ক নিজেই শুক্রবার দুপুর ৩.৩০ নাগাদ সস্ত্রীক হাসপাতালে গিয়ে পরীক্ষা করান। রাত ১০.৩০ নাগাদ তাঁদের রিপোর্টে পজিটিভ দেখা যায়। তাঁর জেলায় সঙ্গে সঙ্গে খবর পৌঁছে যায় এবং দ্রুত স্বাস্থ্য পরীক্ষায় নামে প্রশান। আপাতত বিধায়ক দম্পতি সুস্থই আছেনল এবং তাঁদের মধ্যে মৃদু করোনা উপসর্গ রয়েছে।’

এর আগে অবশ্য স্বাস্থ্য সচিবের বিরুদ্ধে সব জেনেশুনে তথ্য গোপন করার অভিযোগ আনে কংগ্রেস। তাদের দাবি, রাজ্য সভা নির্বা৩চনের দুই দিন আগেই ওই বিজেপি বিধায়কের পরীক্ষা পজিটিটিভ ধরা পড়ে। তা সত্ত্বেও বিধায়কদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তার স্বার্থে তা জানানো হয়নি।

বন্ধ করুন