বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মাওবাদী অন্তর্দ্বন্দ্বে নিহত ৫ হেভিওয়েট জঙ্গিনেতা, নজর রাখছে নিরাপত্তা বাহিনী
মাওবাদীদের অন্তর্দ্বন্দ্বের দিকে সজাগ নজর রয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীর।
মাওবাদীদের অন্তর্দ্বন্দ্বের দিকে সজাগ নজর রয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীর।

মাওবাদী অন্তর্দ্বন্দ্বে নিহত ৫ হেভিওয়েট জঙ্গিনেতা, নজর রাখছে নিরাপত্তা বাহিনী

  • বিজাপুর জেলায় কয়েক জন সাধারণ গ্রামবাসীকে হত্যার জেরে দলের মধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের সূত্রপাত ঘটে।

ছত্তিশগড়ে গত দুই সপ্তাহে সহযোদ্ধাদের হাতে খুন হয়েছেন ৫ মাওবাদী জঙ্গি নেতা, যাঁদের মাথার দাম ছিল এক থেকে তিন লাখ টাকা। মঙ্গলবার এই তথ্য প্রকাশ করেছে রাজ্য পুলিশ।

পুলিশের দাবি, সম্প্রতি বিজাপুর জেলায় কয়েক জন সাধারণ গ্রামবাসীকে হত্যার জেরে দলের মধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের সূত্রপাত ঘটে। তার জেরেই ওই ৫ মাওবাদী জঙ্গি নেতাকে খুন করা হয়েছে। উল্লেখ্য, চলতি মাসের গোড়াতেই গুলি করে হত্যা করা হয় শীর্ষ স্থানীয় মাওবাদী নেতা মোডিয়াম ভিজ্জাকে। 

বস্তার রেঞ্জের ইন্সপেক্টর জেনারেল সুন্দররাজ পি জানিয়েছেন, নিহত ৫ জঙ্গি নেতা হলেন জনবাহিনীর প্ল্যাটুন সেকশনের কম্যান্ডার সন্দীপ ওরফে বুধরাম, মাওবাদী জনতনা স্কুল ইন-চার্জ লাখু হেমলা, দণ্ডকারণ্য আদিবাসী কিষাণ মজদুর সংগঠনের প্রধান সন্তোষ, জনতনা সরকার দলের প্রধান দশরু মাণ্ডবি এবং মিলিশিয়া প্লেটুন কম্যান্ডার কমলু পুনেম।

তাঁদের মধ্যে চার জন গঙ্গালুর আঞ্চলিক কমিটিতে সক্রিয় ছিলেন। শুধু সন্তোষ পামেড আঞ্চলিক কমিটির অধীনে ছিলেন। এই বিষয়ে সবিস্তারে তথ্য আসতে এখনও বাকি রয়েছে, জানিয়েছে পুলিশ।

সুন্দররাজ জানিয়েছেন, গত কয়েক মাস ধরেই মাওবাদীদের প্রবীণ ও নবীন জঙ্গিদের মধ্যে কোন্দলের খবর পাওয়া যাচ্ছিল। বিশেষ করে, স্থানীয় গ্রামবাসীর উপরে নিগ্রহ নিয়ে দলের অন্দরেই মতান্তর শুরু হয়। সম্প্রতি বিজাপুরে পুলিশের চর তকমা দিয়ে গ্রামবাসীদের হত্যা করার জেরে সেই কাজিয়া ফের মাথাচাড়া দেয়। 

পুলিশের দাবি, ঘটনাপ্রবাহের দিকে সজাগ নজর রয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীর। মাওবাদীদের অন্তর্দ্বন্দ্বের হালচাল বুঝে রণকৌশল সাজানোর প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, চলতি বছরের শুরুতে বস্তার ডিভিশনে মাওবাদীদের হাতে নিহত হয়েছেন মোট ৪৩ জন সাধারণ মানুষ।

বন্ধ করুন