এপ্রিল মাসে কোনও গাড়ি বিক্রি হয়নি মারুতি সুজুকির। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)
এপ্রিল মাসে কোনও গাড়ি বিক্রি হয়নি মারুতি সুজুকির। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)

এপ্রিলে শূন্য-বিক্রির রেকর্ড, মে মাসে চালু হতে পারে মারুতি ও হুনডাই-এর উৎপাদন

  • এপ্রিল মাসে কোনও গাড়ি বিক্রি না করার মতো রেকর্ড গড়ল দেশের বৃহত্তম গাড়ি উৎপাদক।

লকডাউনের জেরে প্রত্যাশা মেনেই গোটা এপ্রিল মাসে একটি গাড়িও বিক্রি হল না মারুতি সুজুকি সংস্থার।

গত সপ্তাহে মারুতি সুজুকি ইন্ডিয়া লিমিটেড-এর চেয়ারম্যান আর সি ভার্গব জানিয়েছিলেন, করোনা সংক্রমণের জেরে লকডাউন আরোপিত হওয়ার কারণে বেশ কিছু অভূতপূর্ব ঘটনা ঘটতে চলেছে। তার মধ্যে এপ্রিল মাসে কোনও গাড়ি বিক্রি না করার মতো রেকর্ডও থাকবে বলে তিনি পূর্বাভাস করেন। সে কথা মেনেই গত মাসে কোনও গাড়ি বিক্রি হয়নি এই সংস্থার।

মার্চ মাসেই অবশ্য এমন পরিস্থিতির ইঙ্গিত মিলেছিল যখন সংস্থার বিক্রি একধাক্কায় ৪৭.৪% হ্রাস পেয়েছিল। তচবে শুধু মারুতিই নয়, এই দৃশ্য দেখা গিয়েছে দেশের সমস্ত গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থায়।



আরও পড়ুন: করোনার জেরে বন্ধ বিক্রি, চরম সংকটে অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখাই চ্যালেঞ্জ গাড়িশিল্পের


স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে প্রতি বছর মাসে প্রায় ১,৫০,০০০ গাড়ি বিক্রি করে মারুতি সুজুকি, যার দৌলতে তারা দেশের এক নম্বর গাড়ি নির্মাতা সংস্থার স্থান দখল করে রয়েছে। এ ছাড়া দেশের বাইরেও গাড়ি রফতানি করে এই সংস্থা। এপ্রিল মাসে সমস্ত নিয়মাবলী মেনে মুন্দ্রা বন্দর হয়ে ৬৩২টি গাড়ি দেশের বাইরে পাঠাতে সক্ষম হয়েছে সংস্থা।

মারুতি সুজুকির তরফে জানানো হয়েছিল, এপ্রিলের শেষে হরিয়ানার মানেসরে গাড়ি তৈরির কারখানা ফের চালু করার জন্য প্রয়োজনীয় অনুমোদন পাওয়া গিয়েছে। কিন্তু বাস্তবে কারখানা চালু করার পরে দেখা গিয়েছে, স্রেফ রক্ষণাবেক্ষণের জন্যই তা খোলা হয়েছে।

শোনা যাচ্ছে, মে মাস থেকে উৎপাদন শুরু করবে মারুতি সুজুকি ও হুনডাই। যদিও আপাতত কম সংখ্যক গাড়ি উৎপাদনের পরিকল্পনা করেছে এই দুই সংস্থা।

বন্ধ করুন