বাড়ি > ঘরে বাইরে > কেরালায় মুন্নারের কাছে ধস, মৃত কমপক্ষে ১২
কেরালার চিত্র (PTI)
কেরালার চিত্র (PTI)

কেরালায় মুন্নারের কাছে ধস, মৃত কমপক্ষে ১২

  • মাটি ও পাথরের নীচে ৬০জন চাপা পড়ে আছেন বলে আশংকা।

কেরালার ইডুক্কি জেলার রাজাক্কাডে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ভয়ানক ধস নামে। এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, ১২ জন মারা গিয়েছেন। মাটি ও পাথরের নীচে ৬০জন চাপা পড়ে আছেন বলে আশংকা। জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র মুন্নারের কাছে এই এলাকা। 

ইডুক্কির কালেক্টার বলেন যে দশজনকে ওখান থেকে উদ্ধার করে নিয়ে গিয়ে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন যে মারাত্মক কুয়াশা ও বৃষ্টির জন্য উদ্ধারকাজে ব্যাঘাত ঘটছে। একজন যে বরাতজোরে রক্ষা পেয়েছে, সে সকালে গিয়ে স্থানীয় এরাভিকুলাম জাতীয় পার্কে রক্ষীদের গিয়ে এই ধসের কথা জানান। 

রাজস্ব মন্ত্রী ই চন্দ্রশেখরন জানান যে এনডিআরএফ-এর একটি দল দুর্ঘটনাস্থলে হাজির হয়েছে। যারা আটকে পড়েছে তাদের রক্ষা করতে বিমানবাহিনীর সাহায্য চাইছে রাজ্য সরকার। কিন্তু আপাতত খারাপ আবহাওয়ার জন্য সেটা সম্ভব না। 

যেখানে ধস নেমেছে সেটি পাহাড়ি এলাকা। ধারেকাছের অনেক রাস্তা বৃষ্টিতে ধুয়েমুছে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন চন্দ্রশেখরন। ভোররাতে ধস নামায় অনেকে ঘুমাচ্ছিলেন। তাই কোনও ভাবেই তারা পালানোর পথ পাননি বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। গত তিনদিন ধরে বৃষ্টি পড়ায় ওখানে ইলেকট্রিসিটি নেই। ফলে কার্যত সভ্যতা থেকে বিচ্ছিন্ন রাজাক্কাদ। 

মুন্নার থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে এই ধস নেমেছে। ওই বসতিতে ৮৪ জন থাকে। এছাড়াও আছে একটি ক্যান্টিন। তাই মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশংকা। ওখানকার অনেক নিবাসী পড়শি তামিলনাড়ুর নাগরিক বলে জানা গিয়েছে। 

হাওয়া দফতক ইদ্দুকি সহ কেরালার তিন জেলায় রেড অ্যালার্ট জারি করেছে যে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। বৃষ্টির ফলে ফুলে ফেঁপে উঠেছে নদীগুলি। অনেক জায়গায় বাঁধের ওপর মারাত্মক চাপ পড়ছে। 

একেই দ্রুত করোনা কেসের সংখ্যা বাড়ছে কেরালায়। তার মধ্যে অতিবর্ষণের জেরে মহারাষ্ট্রের মতোই বিপাকে দক্ষিণের এই রাজ্য। 

বন্ধ করুন